আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১১-১০-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

কাফরুলে নিজ বাসায় স্বামী-স্ত্রী ও সন্তানের লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
| প্রথম পাতা

রাজধানীর কাফরুল এলাকায় নিজ বাসা থেকে স্ত্রী-সন্তানসহ এক ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তারা হলেনÑ সরকার মোহাম্মদ বায়েজিদ (৪৭), তার স্ত্রী অঞ্জনা আক্তার (৪০) এবং ওই দম্পতির ছেলে মোহাম্মদ ফারহান (১৭)। 

বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে কাফরুলের ব্লক-ডি, রোড-৫ এর ১০/১ নম্বর বাড়ির তৃতীয় তলায় তাদের লাশ পাওয়া যায়। পুলিশ বলছে, স্ত্রী ও সন্তানকে বিষ খাইয়ে হত্যার পর বায়েজিদ নিজে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ঋণগ্রস্তের কারণে তিনি এ ঘটনা ঘটাতে পারেন।

কাফরুল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিমুজ্জামান জানান, স্বজনরা ফোন দিয়ে তাদের না পেয়ে ওই বাসায় যায়। সেখানে গিয়ে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ওই বাসার তৃতীয় তলা থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করে। বায়েজিদকে ফ্যানের সঙ্গে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় পাওয়া যায়। অন্যদের লাশ 

বিছানায় পড়ে ছিল। পরে তাদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর বিষয়টি স্পষ্ট বলা যাবে। পুলিশের মিরপুর বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মোস্তাক আহমেদ বলেন, বাসায় বিরিয়ানির প্যাকেট পাওয়া গেছে। আমরা ধারণা করছি, বুধবার রাতে কোনো এক সময়ে স্ত্রী ও সন্তানকে বিষ মিশ্রিত খাবার খাওয়ান বায়েজিদ। তাদের মৃত্যুর পর তিনিও আত্মহত্যা করেন। ওই বাসায় একটি চিরকুট পাওয়া গেছে। চিরকুটে তিনি বিভিন্ন হতাশার কথা লিখেছেন। এছাড়া বাসার দেওয়ালে লিখে রাখা হয়েছে, আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। ঋণগ্রস্তের কারণে বায়েজিদ এ ঘটনা ঘটাতে পারেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।
স্থানীয়রা জানান, বায়েজিদ ও অঞ্জনার একমাত্র সন্তান ফারহান মিরপুর কমার্স কলেজে একাদশ শ্রেণিতে পড়ত। বায়েজিদের একটি নিটিং গার্মেন্ট কারখানা ছিল। তবে ব্যবসায় লোকসান হওয়ায় তিনি কারখানা বন্ধ করে দেন। ব্যবসায়িক কারণে তিনি বিভিন্ন ব্যাংক ও ব্যক্তির কাছ থেকে ঋণ নিয়েছেন। এসব ঋণ পরিশোধ করতে না পারায় তিনি হতাশায় ভুগছিলেন।