আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৮-১২-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

ধলেশ্বরী-মেঘনার মোহনায় দুই লঞ্চের সংঘর্ষে নিহত ১

৪ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

নারায়ণগঞ্জ ও সোনারগাঁও প্রতিনিধি
| দেশ

নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সীগঞ্জের মধ্যবর্তী চরকিশোরগঞ্জ এলাকার ধলেশ্বরী ও মেঘনার মোহনায় দুই যাত্রীবাহী লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষে একজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন। শনিবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। তবে এতে লঞ্চ ডুবি কিংবা বড় কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। নিহতের নাম হুমায়ন আহমেদ বন্দুকছি। তিনি শরীয়তপুর রামমেন্দিপুর এলাকার মৃত আবদুল হাই বন্দুকছির ছেলে। তিনি ঢাকার দিকে যাচ্ছিলেন। তবে আহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। ঘটনাস্থলে সকাল ৮টা থেকেই নৌ-বাহিনীর কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএ যৌথভাবে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। দুর্ঘটনাস্থলের সম্ভাব্য স্থান ঘিরে এ তিনটি সংস্থার ডুবুরি দল ১২০ ফুট পানির নিচে নেমে তল্লাশি চালিয়ে যাচ্ছে। কারণ উদঘাটনের জন্য বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ম পরিচালক সাইফুল ইসলামকে প্রধান করে ৪ সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিআইডব্লিউটিএ সদরঘাট নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক আরিফ উদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নারায়ণগঞ্জের বন্দর কলাগাছিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, রাত পৌনে ২টায় দুই নদীর মোহনায় ঢাকা থেকে চাঁদপুরগামী বোগদাদিয়া-১৩ ও শরীয়তপুর থেকে ঢাকাগামী মানিক-৪ নামে দুটি লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে মানিক-৪ লঞ্চের যাত্রী হুমায়নসহ পাঁচ থেকে ছয়জন আহত হন। আর দুই থেকে তিনজন ছিটকে নদীতে পড়ে যান। পরে আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ডাক্তার হুমায়নকে মৃত ঘোষণা করেন। আর বাকি পাঁচজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। যারা নদীতে পড়ে গিয়েছিল তাদের উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। যাত্রীবাহী লঞ্চ দুটি নিজ নিজ গন্তব্যে চলে গেছে। তিনি আরও বলেন, প্রচ- কুয়াশা ও মানিক-৪ লঞ্চের হেডলাইট না থাকায় ওই দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা যাচ্ছে। এ বিষয়ে তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে। যেহেতু মুন্সীগঞ্জ জেলার অধীনে হওয়ায় বিষয়টি গজারিয়া নৌ-পুলিশ তদন্ত করবে।