পড়ার বিষয় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ফ্যাশন ডিজাইন গ্রাফিক ডিজাইন

বর্তমান বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের চাহিদা বেশ। এইচএসসি শেষ করার পর বেশিরভাগ শিক্ষার্থীরই ইচ্ছা থাকে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার। আর সবার পছন্দের তালিকায় টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বেশ ওপরের দিকেই অবস্থান করে। সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে প্রায় ১৯টি বিশ্ববিদ্যালয় এবং ৮টি কলেজ ও ইনস্টিটিউটে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ানো হয়।

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার জন্য একমাত্র সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় হলো বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব টেক্সটাইলস (বুটেক্স)। এবার বুটেক্সে দুই ইউনিটে ৫৬০ শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হবে। ‘ক’ ইউনিটের বিভাগগুলোর মধ্যে ইয়ার্ন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৮০টি, ফেব্রিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৮০টি, ওয়েট প্রসেস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৮০টি এবং ডাইস অ্যান্ড কেমিক্যালস ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৪০টি আসন রয়েছে। অন্যদিকে ‘খ’ ইউনিটের অ্যাপারেল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ৮০টি, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ম্যানেজমেন্টে ৮০টি, টেক্সটাইল ফ্যাশন অ্যান্ড ডিজাইনে ৪০টি, ইন্ডাস্ট্রিাল অ্যান্ড প্রোডাকশন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৪০টি ও টেক্সটাইল মেশিনারি ডিজাইন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্সে রয়েছে ৪০টি আসন।
ভর্তির যোগ্যতা
শিক্ষার্থীদের মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় আলাদাভাবে কমপক্ষে জিপিএ-৪.৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। এছাড়া উচ্চমাধ্যমিকে গণিত, পদার্থ, রসায়ন ও ইংরেজি বিষয়ে ন্যূনতম জিপি-৪সহ থাকতে হবে মোট ১৮ গ্রেড পয়েন্ট। ভর্তি ফরম সংগ্রহ করা যাবে ২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত।
ভর্তি পরীক্ষা ও ফলাফল সংক্রান্ত যে কোনো তথ্য জানা যাবে বিশ্ববিদ্যালয়টির ওয়েবসাইটে (www.butex.edu.bd)।
এছাড়াও মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে টেক্সটাইল প্রকৌশল বিভাগে পড়া যায়।
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে আহ্্ছানুল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে খরচ হবে ৬ লাখ ৬৭ হাজার টাকা। এখানে পড়তে চাইলে এসএসসি ও এইচএসসি মিলিয়ে মোট জিপিএ ৮ থাকতে হবে। এইচএসসিতে কমপক্ষে ৩.৫ থাকতে হবে।
প্রাইম এশিয়া থেকে পড়তে মোট খরচ পড়বে ৪ লাখ ৯৬ হাজার টাকা। এসএসসি ও এইচএসসি মিলিয়ে মোট জিপিএ-৬ থাকতে হবে এবং প্রত্যেকটিতে আলাদাভাবে ২.৫ থাকতে হবে। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকে পড়তে মোট খরচ পড়বে ৫ লাখ ৯৫ হাজার টাকা। এসএসসি ও এইচএসসি দুইটিতেই আলাদাভাবে জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে। বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি থেকে পড়তে খরচ হবে ৬ লাখ টাকা। এসএসসি ও এইচসসিতে আলাদাভাবে কমপক্ষে জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে।
ফ্যাশন ডিজাইন
বাংলাদেশে ফ্যাশন ডিজাইনের ওপর ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি দেয়া হয় একমাত্র বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব টেক্সটাইলস থেকে। এছাড়াও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনলজি থেকে ফ্যাশন ডিজাইনের ওপর ব্যাচেলর ডিগ্রি দেয়া হয়। এখানে পড়তে খরচ পড়বে ৪ লাখ ৫২ হাজার টাকা। এসএসসি ও এইচসিতে কমপক্ষে জিপিএ ২.০ থাকতে হবে। বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি থেকে ফ্যাশন ডিজাইন পড়তে খরচ পড়বে ৫ লাখ ৪৮ হাজার টাকা। এসএসসি ও এইচএসসিতে আলাদাভাবে কমপক্ষে জিপিএ ২.৫ থাকতে হবে। 
গ্রাফিক ডিজাইন
শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজি থেকে গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর ব্যাচেলর ডিগ্রি নিতে খরচ পড়বে ৪ লাখ ২৮ হাজার টাকা। এছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ থেকে গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর ব্যাচেলর ডিগ্রি দেয়া হয়। চারুকলা অনুষদে পরীক্ষা দিতে হলে এসএসসি ও এইচএসসিতে আলাদাভাবে জিপিএ-৩ (চতুর্থ বিষয় বাদে) থাকতে হবে এবং দুইটি মিলে জিপিএ-৬.৫ থাকতে হবে। এছাড়াও বিভিন্ন ইনস্টিটিউট থেকে গ্রাফিক ডিজাইনের ওপর ডিপ্লোমা ও বিভিন্ন সার্টিফিকেট কোর্স করা যায়। 


আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ পেলেন ৯০ প্রাণী
পোলট্র্রির বিজ্ঞানসম্মত স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনা, সঠিকভাবে রোগবালাই নির্ণয়, চিকিৎসা এবং রোগ
বিস্তারিত
সবার উপরে বাবা-মা
যে-কোনো মানুষের গায়ে হাত তোলাই অপরাধ। আর সন্তান হয়ে বাবা-মায়ের
বিস্তারিত
স্মৃতির মানসপটে যুক্তরাজ্য সফর
বিদেশে যাওয়ার অভিজ্ঞতা হয়তো অনেকেরই হয়ে থাকে। তবে কলেজের প্রতিনিধি,
বিস্তারিত
ব্যবসার ধারণা : গড়তে চাইলে
নিজের পায়ে দাঁড়াতে হলে আপনাকে উদ্যোগী হতে হবে। আর উদ্যোক্তা
বিস্তারিত
৭৫ শতাংশ বৃত্তিতে আইটি ও
বিভিন্ন কারণে যারা আইটিতে দক্ষতা উন্নয়নের সুযোগ থেকে বঞ্চিত তাদের
বিস্তারিত
লক্ষ্য যখন কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বিপরীতে ক্রমাগত উর্বরা জমির পরিমাণ কমছে। জনসংখ্যার এ
বিস্তারিত