অফিসে গান শুনলে দক্ষতা বাড়ে

অনেকেই ভেবে থাকেন গান শুনলে মন ভালো থাকে। আবার কেউ কেউ মনে করেন যে, গান তাদের আরও বেশি কার্যক্ষম করে তোলে। এ নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও গবেষণায় দেখা গেছে যে, অফিসে কাজের ফাঁকে গান শুনলে মনে বেশ উৎফুল্লতা চলে আসে এবং নতুন নতুন তথ্য খুব সহজে ধারণ করা সম্ভব হয়।

‘গান শোনা’ এবং ‘কাজ করা’ দুটো আলাদা কাজ এবং আপাতদৃষ্টিতে দেখতে পরস্পরবিরোধী বলেই মনে হয়। কিন্তু মায়ামি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর টেরেসা বলেন, সাধারণত নিজের পছন্দমতো গান শোনার এবং মনের উৎফুল্লতা- দুটি একে অপরের সঙ্গে খুবই সম্পৃক্ত। আর প্রফুল্ল মনের সঙ্গে কার্যক্ষমতার জোরালো সম্পর্ক রয়েছে। আর এভাবেই সুস্থ ও সুন্দর মন অনেক পজিটিভ এবং বেশি বেশি কাজে মনোনিবেশ করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, এছাড়াও আপনি দেখবেন। আপনি যখন অনেক ভালো একটা মুডে থাকেন তখন যে কোনো সমস্যা আপনি খুব দ্রুত সমাধান করে ফেলতে পারছেন। কারণ আপনি তখন মনকে কেন্দ্রীভূত করতে পারছেন।

সুতরাং গান শোনা আপনাকে শুধু কার্যক্ষমই করে তোলে না বরং আপনার উদ্ভাবন ক্ষমতাকে আরও জোরালো করে তুলে আপনাকে করে দেয় অনেক সৃজনশীল। তবে এটা ঠিক যে, বেসুরো গান এবং দ্রুত তালের গান মনকে আরও বিক্ষিপ্ত করে তুলতে পারে। অফিসে যদি আপনাকে এমন কোনো গান শুনতে হয়, যে গান আপনি একটুও পছন্দ করেন না তখন কিন্তু এর ফল ভিন্ন রকমের হতে পারে। সূত্র : ইন্টারনেট


ভাষা আন্দোলন ও জাতীয় শহীদ
কোন দেশেই মায়ের ভাষা বা মানুষের মুখের ভাষায় কথা বলার
বিস্তারিত
বইমেলায় সালমা সুলতানার গল্পগ্রন্থ 'দহন'
‌'এ তো আমার জীবনের কাহিনী, আপনি জানলেন কী করে?' 'আপনার গল্পের
বিস্তারিত
গীতিকার ইলা মজিদের সাথে কিছুক্ষণ
লেখালেখির জগতে বেশ হাত পাকিয়েছেন ইলা মজিদ। ইতোমধ্যে কাশবনের দীর্ঘশ্বাস,
বিস্তারিত
ওদের প্রতিভা বিকাশের দায়িত্ব আমাদেরই
ওরা সবাই আমাকে ভালোবাসে। দূর থেকে আমাকে দেখতে পেলেই ভাইয়া
বিস্তারিত
পায়ে লিখেই জীবন গড়ার স্বপ্ন
মানুষ যেকোনও লেখালেখির কাজ সাধারণত হাত দিয়েই করে থাকে। হতে
বিস্তারিত
বিরিয়ানির হাঁড়িতে লাল কাপড় থাকে
বিরিয়ানি পছন্দ করেন না এমন লোক বাংলাদেশে খুঁজে পাওয়া কষ্ট
বিস্তারিত