স্বাস্থ্যকর ককরোচ জুস!

আরশোলা দেখলে আমরা অনেকেই ভয়ে ছোটাছুটি শুরু করে দিই। জানেন হয়তো, চীনের মানুষ তা করে না। তাদের খাদ্যাভ্যাসে আরশোলার বিশেষ স্থান রয়েছে। তবে জানেন কী, শুধু খাবার নয়, আরশোলা দিয়ে বানানো ওষুধও কিনে খান তারা! হু, ঠিকই পড়ছেন। চীনের সিচুয়াং প্রদেশের শিচ্যাঙে বিশাল এক কারখানাই রয়েছে। সেখানে বছরে গড়ে ৬০০ কোটি আরশোলা জন্ম নিচ্ছে।
বিশেষ প্রযুক্তির সাহায্যে ওই ফার্মের আলোর পরিমাণ, আর্দ্রতা, খাবার সরবরাহের তথ্য বিশ্লেষণ করা হয়। আরশোলার ঘরগুলোতে মানুষ খুব প্রয়োজন ছাড়া ঢোকে না। আর এ ফার্মে চাষ করা আরশোলা থেকেই বানানো হয় বিশেষ ওষুধ- ‘ককরোচ জুস’।
কীভাবে বানানো হয় এ জুস? প্রথমে বেছে বেছে স্বাস্থ্যকর আরশোলাগুলোকে আলাদা করা হয়। তারপর ভালো করে ধুয়ে সেগুলোকে একটি মেশিনে ঢোকানো হয়। এ মেশিনেই আরশোলাগুলোর
পেস্ট বানানো হয়। তৈরি হয়ে যায় ‘ককরোচ জুস’।
এ জুস খেলে খাদ্যনালি এবং শ্বাসযন্ত্রের রোগ দূর হয় বলে দাবি চীনের ওই সংস্থার। তবে তা কতটা বিজ্ঞানসম্মত, তা নিয়ে এখনও ধন্দ রয়েছে। জুসের বোতলের গায়ে উপকরণের জায়গায় শুধু লেখা থাকে পেরিপ্ল্যানাটা আমেরিকানা। আরশোলার বিজ্ঞানসম্মত নাম এটাই। ওই সংস্থা ২০০ মিলিলিটারের একটি ‘ককরোচ জুস’ বোতল ৮ ডলারে বিক্রি করে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা সাড়ে ৬০০ টাকার মতো। সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা


ভাষা আন্দোলন ও জাতীয় শহীদ
কোন দেশেই মায়ের ভাষা বা মানুষের মুখের ভাষায় কথা বলার
বিস্তারিত
বইমেলায় সালমা সুলতানার গল্পগ্রন্থ 'দহন'
‌'এ তো আমার জীবনের কাহিনী, আপনি জানলেন কী করে?' 'আপনার গল্পের
বিস্তারিত
গীতিকার ইলা মজিদের সাথে কিছুক্ষণ
লেখালেখির জগতে বেশ হাত পাকিয়েছেন ইলা মজিদ। ইতোমধ্যে কাশবনের দীর্ঘশ্বাস,
বিস্তারিত
ওদের প্রতিভা বিকাশের দায়িত্ব আমাদেরই
ওরা সবাই আমাকে ভালোবাসে। দূর থেকে আমাকে দেখতে পেলেই ভাইয়া
বিস্তারিত
পায়ে লিখেই জীবন গড়ার স্বপ্ন
মানুষ যেকোনও লেখালেখির কাজ সাধারণত হাত দিয়েই করে থাকে। হতে
বিস্তারিত
বিরিয়ানির হাঁড়িতে লাল কাপড় থাকে
বিরিয়ানি পছন্দ করেন না এমন লোক বাংলাদেশে খুঁজে পাওয়া কষ্ট
বিস্তারিত