হাসি ও গম্ভীর মুখের পার্থক্য বুঝতে পারে ছাগল!

আমরা কথায় কথায় কাউকে না কাউকে ছাগল বলে ফেলি। ছাগল বলা হয় সাধারণত তুচ্ছার্থে; কাউকে বোকাসোকা বোঝাতে। কিন্তু জানেন কি বাস্তবে এই ছাগলই অনেক বুদ্ধিমান? যে ছাগলকে আপনি বোকাসোকা ভাবেন সেই ছাগলই মানুষের হাসি ও গম্ভীর মুখের ছবি আলাদাভাবে চিনতে পারে? বুধবার এমন এক গবেষণা প্রতিবেদনে এটাই দাবি করা হয়েছে। খবর বার্তা সংস্থা এএপি’র।

ইউরোপ ও ব্রাজিলের গবেষকরা জানান, ২০টি গৃহপালিত ছাগলকে একই ব্যক্তির হাসি ও গম্ভীর মুখের দুটি ছবি দেখানো হলে তারা হাসি মুখের ছবিটিকেই মুখ দিয়ে স্পর্শ করে।

সহকারি গবেষক লন্ডনের কুইন মেরি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্রিস্টিয়ান নওরোত বলেন, ‘ছাগলরা হাসিমুখের দিকে গড়ে ১ দশমিক ৪ সেকেন্ড তাকিয়ে থাকে ও স্পর্শ করে। আর গম্ভীর মুখের দিকে ০ দশমিক ৯ সেকেন্ড তাকিয়ে থাকে।’

তিনি আরও বলেন, ‘এর মানে ছাগলরা আনুমানিক ৫০ শতাংশ বেশি সময় হাসি মুখের ছবির দিকে তাকিয়ে ছিল। তারা ছবিটাকে স্পর্শ করে।’

রয়েল সোসাইটি ওপেন সাইন্স পত্রিকায় গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়। তারা দাবি করে ছাগল যে মানুষের আবেগ বুঝতে পারে এটা তার প্রথম প্রমাণ।


এটি অপয়া ফোন নম্বর, ব্যবহার
পয়া-অপয়া মানেন তো? সব জিনিসেই সেটি আছে। যেমন কোনো নম্বর।
বিস্তারিত
হোটেলের গোপন ক্যামেরায় পর্নোগ্রাফির শিকার
দক্ষিণ কোরিয়ার বিভিন্ন হোটেল রুমে অতিথিদের ব্যক্তিগত মুহূর্ত গোপনে ধারণ
বিস্তারিত
যে শহরে ছেলেরা প্রতিনিয়ত যৌন
পৃথিবীর এমন কিছু স্থান আছে, ভয়ানক সুন্দর। মন চায় বারবার
বিস্তারিত
যৌনসম্পর্কের সময় যন্ত্রপাতি ব্যবহার করত
মাইকেল জ্যাকসন! নামের সঙ্গেই যেন একটা রহস্য জড়িয়ে। মাইকেলের লুক
বিস্তারিত
সন্তান জন্ম দেওয়া নিষিদ্ধ এই
সন্তান জন্ম দেওয়া একটি স্বাভাবিক বিষয়। কেউ হয়তো গৃহেই সন্তান
বিস্তারিত
বিয়ের তিন মিনিটের মাথায় স্বামীকে
সদ্য বিবাহিত এক দম্পতি, কেবলই বিয়ের কাজ সম্পন্ন করেছেন। আনুষ্ঠানিকতা
বিস্তারিত