কাউনিয়ায় বালু জমিতে বস্তায় বিষ মুক্ত লাউ চাষ

বালু জমিতে বস্তায় বিষ মুক্ত লাউ চাষ করে এলাকাবাসীকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে লাল মসজিদ এলাকা মতিয়ার রহমান। কাউনিয়ায় উপজেলার ব্যতিক্রমি বস্তায় লাউ চাষসহ তিনি এখন বিভিন্ন ধরনের সবজি চাষ করে এলাকায় আদর্শ সবজি চাষি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

সরেজমিনে কাউনিয়ায় উপজেলার টেপামধুপুর ইউনিয়নের নিজদর্পা লাল মসজিদ গ্রামে গিয়ে দেখা গেছে ১২ শতক বালু জমিতে বস্তায় চাষ করা হাইব্রীড লাউ ঝুলছে। তার বালু জমিতে এখন সবুজের সমারোহ। বস্তায় সফল লাউ চাষি মতিয়ার রহমান জানান, তার লাউ চাষের সাফল্য গাঁথা, তিনি কৃষি বিভাগের পরামর্শে নিজ বালু জমিতে আধুনিক পদ্ধতিতে ২৮টি বস্তায় বীজ রোপন করে মাচা (ঝাঙ্গি) করে লাউ চাষ করে। অনেকে বলেছিল বালু মাটি আর বস্তায় কোনো দিন লাউ চাষ হয়? ইতোমধ্যে লাউ গাছগুলো যখন বড় হয়ে ফল ধরতে শুরু করে তখন অনেকেই এসে বলে এটাও কি সম্ভব! বর্তমানে বাজারে লাউ বিক্রয় শুরু করেছেন তিনি।

প্রতিটি লাউ পাইকারী দরে ১৫ টাকা করে বাজারে বিক্রয় করছেন। তিনি জানান বালু জমিতে বস্তা, মাটি, মাচা করতে বাঁশ, সার বীজ, কামলা বাবদ  প্রায় ৮ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। তিনি এ পর্যন্ত ২ হাজার টাকার লাউ বিক্রয় করেছেন এবং আরও ২০ হাজার টাকার লাউ বিক্রয় হবে বলে আশা করছেন।

লাউ ক্ষেতে তিনি কোনো রাসায়নিক কিটনাশক স্প্রে করেন না। কৃষি বিভাগের দেয়া ফেরোমেনান ফাঁদ প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে পোকা মাকর দমন করেন। তিনি আরও জানান, বালু জমিতে বস্তায় লাউ চাষ হয় তা তিনি নিজেও বিশ্বাস করতে পারেন নি। এটাতে সফলতা দেখে সবজি চাষ তার নেশা হয়ে দাড়িয়েছে।

তিনি বস্তায় পাতা কফি, ফুল কফি, বেগুন, করলা, সিম চাষ করেছেন। বর্তমানে লাউ, সিম ও বেগুন ক্ষেতে আছে। বালু জমিতে তার লাউ চাষে সাফল্যে দেখে এলাকার কৃষকরা প্রতিনিয়ত তার কাছে পরামর্শ নিতে আসে। তার সবজি চাষে সব সময় তার পাশে থাকে তার স্ত্রী। কৃষি বিভাগের পরামর্শে সে বাড়ির কাছে ১২ শতক বালু জমিতে প্রথম বস্তায় লাউ চাষ শুরু করে। কৃষি বিভাগের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা এমদাদুল হক তাকে নিয়মিত পরামর্শ প্রদান করেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাইফুল আলম জানান সবজি চাষিদের যেকোন সমস্যা দ্রুত সমাধানে পরামর্শ প্রদান করা হয়ে থাকে। প্রথমের দিকে একটু সেচ দিলেই হয়। মতিয়ার জানান সবজি জাতীয় ফসলের বীমা করা, অধুনিক প্রশিক্ষন ও সহজ শর্তে কৃষি ঋন এর ব্যবস্থা কারা প্রয়োজন। কাউনিয়া উপজেলার মতিয়ার রহমান এখন বালু জমিতে বস্তায় সফল সবজি চাষি হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে।

রংপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক ডক্টর সারওয়ারুল হক জানান বৃষ্টি বেশী হলে লাউ ও গোড়ায় পানি জমলে লাউ গাছ মরে যায় সেই ক্ষেত্রে বস্তায় লাউ চাষ করলে ক্ষতির সম্ভবনা থাকে না। তাছাড়া বালু জমিতে ফসল ফলে না সেই বালু জমিতে এবং পানির উপরও বস্তায় বিভিন্ন জাতের সবজি চাষ করা সম্ভব। তিনি আরো বলেন এভাবে কৃষি বিভাগের দেয়া ফেরোমেনান ফাঁদ প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে পোকা মাকর দমন করে সফলা পাওয়া গেছে। অন্যান্যে এলোকাতেও এপ্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে


জীবনযুদ্ধে থেমে নেই জয় মালা
নাম জয়মালা বেগম স্বামী মৃত হালু মিয়া। সংসারে চার মেয়ে
বিস্তারিত
সফল উদ্যোক্তা আলিয়াহ ফেরদৌসি
চেনা গণ্ডির সীমানা ভেঙে বেরিয়ে আসছেন নারীরা। কৃষিকাজ থেকে শুরু
বিস্তারিত
রংপুর তাজহাট জমিদার বাড়ি ইতিহাস-ঐতিহ্যের
রংপুর মহানগরীর  দক্ষিণ পূর্বে অবস্থিত তাজহাট জমিদার বাড়ি। রংপুর মূল
বিস্তারিত
ডায়াবেটিক প্রতিরোধে স্টেভিয়া: চিনির চেয়ে
বিরল উদ্ভিদ স্টেভিয়া এখন বাংলাদেশে পাওয়া যাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন এলাকায়
বিস্তারিত
গফরগাঁওয়ে কেঁচো সার উৎপাদনে ভাগ্য
ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের সাবেক মেম্বার আবুল হাশেম নিজেই কেঁচো সার (ভার্মি
বিস্তারিত
জোড়া শিকারি কুকুর উপহার
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তিনি ও উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ
বিস্তারিত