কাঠঠোকরা

আমার দেহে ঠুকরে ঠুকরে অনবরত
গর্ত করে কাঠঠোকরা 
বাসা বানায়
ব্যথায় নীল হই আমি।
তুমি খোঁজ সুখের বাস
জমা রাখো সোনালি ডিম।

তারপর ডিমগুলি পাখি হয়
এবং উড়ে যায়

আমি অসংখ্য ভালোবাসার গর্ত দেহে দাঁড়িয়ে থাকি
অতঃপর শূন্য গর্তে সাপেরা এসে বাসা বাঁধে।


শরীর
সন্ধ্যা নামে। রাত বাড়ে। তার চিরচেনা গাঁয়ের মতো ঝিঁ ঝিঁ
বিস্তারিত
পাতার প্রাসাদ
ঘোরলাগা শীতকাল দাঁড়িয়ে সমুখে নীরবে পাতারা ঝরে, সুখে নাকি দুঃখে?  ঝরে
বিস্তারিত
হারমনি অব ওশ্যান
লবণের জল ঠিক জানে কতটা দোলনায় ফেরা যাবে পাড়ে কোন খামে
বিস্তারিত
সোনালি সকাল
চেয়েছিলাম অভিমানে শীতের সকালের রোদ্দুরে অভিমানী চিঠি হয়ে খেজুর পাতার পাটিতে
বিস্তারিত
হাবিল-কাবিল
মনোদেশ ছুঁয়ে গেল ঘোর কোনো নেশা নিষিদ্ধ ফুলের পরাগে অনুচিত স্বপ্নরা
বিস্তারিত
যাওয়া হয় না ঈপ্সিত গন্তব্যে
কুয়াশাচ্ছন্ন ভোরকে নিত্য পেছনে ঠেলে অতীতের গ্লানিময় অথৈ স্মৃতিকে  বারবার ভুলে
বিস্তারিত