রোদের গল্প

রোদ যতটুকু পালিয়ে যেতে চায় বনে
মেঘ তাকে ঘিরে রাখে ততটুকু মায়ায়
আমাদের রোদ ও মেঘ কিছুই নেই
মাথার উপরে যে আকাশ দ্বিধাগ্রস্ত দাঁড়িয়ে
আমরা হাত বাড়িয়েও তাকে ছুঁতে পারি না।

আমরা অমলকান্তির মতো রোদ হতে প্রার্থনা করি
প্রেমের চৌচির মাঠে দাঁড়িয়ে মেঘ হতে আরতি করি
আমরা প্রার্থনা করি নুহের মতো দিগন্তব্যাপী প্রলয়ে
জীবন থেকে কিনেছি জীবন, কিনেছি তীব্র দাহ-সন্তাপ

যতটুকু পালিয়ে যাই সবুজ বৃক্ষের দিকে, রৌদ্র ছুঁতেÑ
ততটুকু পোড়ে শরীর ততটুকু উত্তাপে।


রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা
  ১. নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত