‘খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে সরকারি চাপে’

সরকারি চাপে নতিস্বীকার করে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, ‘আমি খুব জোর গলায় বলতে পারি, সম্পূর্ণ সরকারি চাপের মুখে খালেদা জিয়াকে বেআইনিভাবে সাজা দেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলতে চাই, এই ব্যবস্থার পরিবর্তন হতে হবে। বিচার বিচারের মতো হতে হবে। রাজনৈতিক বিবেচনায় যেন কোনো ব্যক্তির বিচার না করা হয় সে জন্য আপনাদের এগিয়ে আসতে হবে।

শনিবার বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট চত্বরে জাতীয় আইনজীবী ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত আইনজীবীদের মহাসমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা বিচারবিভাগের দিকে তাকিয়ে থাকি। যখন সরকার দ্বারা আক্রান্ত হই তখন এই মহান ভবনে আসি, একটু আশ্রয়ের আশায়। কিন্তু বিচারবিভাগে সেই আশ্রয়টুকুও আমাদের আজ নেই। উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিম্ন আদালতে গেলে সেখানে বিচার পাওয়া যায় না। আমাদের বহু নেতাকর্মী এই অবস্থার সম্মুখীন। এর পরিবর্তন আনতে হবে।

এদিকে সারাদেশ থেকে আগত আইনজীবীদের মহাসমোবেশে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের বক্তব্যে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহাকে স্মরণ না করায় মর্মাহত হয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, আমি শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করে বলতে চাই, দেশের তৎকালীন প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা এই বন্ধ্যাত্বের যুগে, যখন কেউ কোনো প্রতিবাদ করে না, সত্য বলে না, তখন এই মানুষটি দাঁড়িয়েছিলেন, প্রতিবাদ করেছিলেন। তিনি সত্য রায় দিয়েছিলেন, সত্য বলেছিলেন। এ জন্য সরকার তাকে জোরজবরদস্তি করে দেশ থেকে বের করে দিয়েছে। বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা তাদের বক্তব্যে বিচারপতি সিনহার কথা উল্লেখ না করায় মর্মাহত হয়েছি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আমি আশা করেছিলাম আপনারা আজ তাকে স্মরণ করবেন। কিন্তু কেউ সেটি করলেন না। আমাদের সবার উচিত তাকে গভীর শ্রদ্ধা জানানো এবং তিনি যে কথাগুলো উচ্চারণ করে গেছেন সেগুলো বারবার বলা উচিত।

বিচারবিভাগের স্বাধীনতার জন্য সব আইনজীবীকে আন্দোলন নামার আহ্বান জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বিচারবিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত না হলে মানুষ আইনের শাসন থেকে বঞ্চিত হবে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও আইনজীবী ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক জয়নুল আবেদীন। প্রধান অতিথি ছিলেন গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন।

সুপ্রিম কোর্ট বারের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকনের পরিচালনায় মহাসমাবেশে বক্তৃতা করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহবুব হোসেন, ব্যারিস্টার মোহাম্মদ শাহজাহান ওমর, মীর নাসির, গিয়াস উদ্দিন, ব্যারিস্টার বদরোদ্দোজা বাদল, অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী, তৈমুর আলম খন্দকার, সানা উল্লাহ মিয়া, সৈয়দ মুয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কামরুল ইসলাম সজল, নাসরিন আক্তার প্রমুখ।

এছাড়া সমাবেশে গণফোরামের কার্যকরী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, জগলুল হায়দার আফ্রিকসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসা বিএনপিপন্থী আইনজীবীরাও বক্তব্য দেন।


জামায়াত ছাড়লেন ব্যারিস্টার রাজ্জাক
বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিরোধিতার পর দেশের মানুষের কাছে ‘ক্ষমা না চাওয়ায়’
বিস্তারিত
বিএনপির গণশুনানি গণতামাশা ছাড়া কিছ্ইু
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
নয় বছর পর মধুর ক্যান্টিনে
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছাত্রদল,
বিস্তারিত
খালেদার মুক্তির এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর হাতে
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আজ বলেছেন, কারাগার থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন
বিস্তারিত
বিএনপি ও জামায়াতের চিন্তা চেতনা
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
টানা তৃতীয়বার সংসদ উপনেতা সাজেদা
ভাষাসৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের
বিস্তারিত