মিতব্যয়িতা ইসলামে পছন্দনীয় কাজ

মানুষকে মিতব্যয়ী হতে উৎসাহিত করতে প্রতি বছর ৩১ অক্টোবর বিশ্বজুড়ে পালন করা হয় বিশ্ব মিতব্যয়িতা দিবস। ১৯২৪ সালে মিলানে অনুষ্ঠিত বিশ্বের বিভিন্ন সঞ্চয় ব্যাংকের প্রতিনিধিদের প্রথম বিশ্ব কংগ্রেস গৃহীত এক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আন্তর্জাতিকভাবে দিবসটি পালন শুরু হয়।  
মিতব্যয় মানে হলোÑ ব্যয়ের ক্ষেত্রে সংযম বা আয় বুঝে ব্যয়। ‘ব্যয়ের ক্ষেত্রে মধ্যমপন্থা অবলম্বন’ও মিতব্যয়িতার অর্থ। ইসলাম অপব্যয় এবং কৃপণতার ব্যাপারে সতর্ক করে মিতব্যয়িতার নির্দেশ দিয়েছে বারবার। কৃপণতা ও অপব্যয় কোনোটিই জায়েজ নেই ইসলামে। দীর্ঘদিন ধরে মিতব্যয়িতা দিবস পালিত হয়ে এলেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মানুষ অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছে। কেউ কেউ সম্পদ জমা করতে গিয়ে কৃপণতা করছে। কেউবা বিলাসবহুল জীবন গড়তে গিয়ে অপচয় করছে হাজারো টন খাবার। 
জাতিসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বে প্রতি বছর প্রায় ১৩০ কোটি টন খাদ্য নষ্ট হয়। এ অপচয়ের ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৭৫ হাজার কোটি ডলার, যা আমাদের বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৬০ লাখ কোটি টাকা। অথচ বিশ্বের বহুসংখ্যক মানুষের এখনও নিয়মিত তিন বেলা খাবার জোটে না। সম্প্রতি ‘বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টিবিষয়ক কৌশলগত পর্যালোচনা’ শীর্ষক এ গবেষণায় এসেছে, বাংলাদেশের ৪ কোটি মানুষ এখনও ক্ষুধার্ত থাকে। অর্থাৎ, মোট জনসংখ্যার এক-চতুর্থাংশ খাদ্য নিরাপত্তা এখনও নিশ্চিত হয়নি। সরকার ও জাতিসংঘের খাদ্য কর্মসূচির এক যৌথ গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। অথচ হতদরিদ্রদের জন্য বরাদ্দকৃত ১০ টাকা কেজি দরের চাল অবস্থাপন্নদের ঘরে উঠছে। প্রতিবেদনের অন্যতম গবেষক আয়ারল্যান্ডের আলস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অর্থনীতির অধ্যাপক বলেন, অপুষ্টির কারণে প্রতি বছর বাংলাদেশের জনগণের উৎপাদনশীলতা কমছে, যার আর্থিক ক্ষতি বছরে প্রায় ১০০ কোটি ডলারের বেশি। বিশ্বে প্রতিদিন ১৭ কোটি মানুষ ক্ষুধার্ত অবস্থায় দিন কাটায়। (দৈনিক ইনকিলাব ৩১ অক্টোবর ২০১৬)।  
ভারসাম্যপূর্ণ ও মধ্যমপন্থার জীবন দর্শন ইসলাম সব সময়ই তার অনুসারীদের মিতব্যয়ী হতে নির্দেশ দিয়েছে। মধ্যমপন্থা শুধু ব্যয়ের ক্ষেত্রেই নয় বরং কথাবার্তা, হাটাচলার ক্ষেত্রেও মধ্যমপন্থা অবলম্বনের নির্দেশ দিয়েছে ইসলাম। এরশাদ হয়েছে, ‘পদচারণায় মধ্যবর্তিতা অবলম্বন করো এবং কণ্ঠস্বর নিচু করো।’ (সূরা লোকমান : ১৯)। প্রয়োজনীয় খরচ করতে, খাবার খেতে নিষেধ নেই। কিন্তু অপ্রয়োজনে খরচ করা পবিত্র কোরআনুল কারিমে কঠোরভাবে নিষিদ্ধ। আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘তোমরা আহার এবং পান করো, আর অপচয় করো না; তিনি (আল্লাহ) অপচয়কারীদের ভালোবাসেন না।’ (সূরা আরাফ : ৩২)। অপব্যয়কারীকে কোরআনুল কারিমে শয়তানের ভাই বলেও অভিহিত করা হয়েছে। এরশাদ হয়েছে, ‘নিশ্চয়ই অপব্যয়কারীরা শয়তানের ভাই।’ (সূরা বনি ইসরাইল : ২৭)। প্রয়োজন অতিরিক্ত জিনিসও মিতব্যয়িতার অংশ নয়, বরং শয়তানের অংশীদার। যার প্রমাণ মেলে নিম্নের হাদিস থেকে। হজরত জাবির (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘কারও ঘরে একটি বিছানা তার জন্য, অপরটি তার স্ত্রীর জন্য, তৃতীয়টি মেহমানদের জন্য এবং চতুর্থটি শয়তানের জন্য।’ (মুসলিম)।  
যেহেতু বিলাসিতার কোনো শেষ নেই তাই ঊর্ধ্বতন ব্যক্তির জীবনযাত্রার প্রতি তাকালে কেউই নিজের আয় দিয়ে তার ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হবে না। তার আয় অভাব ও চাহিদার তুলনায় অপর্যাপ্ত মনে হবে। পৃথিবীর সমুদয় সম্পদের দ্বিগুণও তার অভাব পূরণ করতে পারবে না। ছায়ার মতো দাঁড়িয়ে থাকা চাহিদাই তার জীবনের হতাশা ও উদ্বিগ্নতার কারণ হবে। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) থেকে বর্ণিত। রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘দুনিয়ায় এমনভাবে জীবনযাপন করো যেন তুমি বিদেশি অথবা পথিক।’ (বোখারি)।  
পবিত্র কোরআনুল কারিমে অপচয় ত্যাগের কঠোর নির্দেশ জারি করে এরশাদ হয়েছে। রাসুলে করিম (সা.)ও অপব্যয়ের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে ছিলেন। একদা রাসুলুল্লাহ (সা.) হজরত সা’দকে (রা.) অজুতে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পানি ব্যয় করতে দেখে বললেন, ‘হে সা’দ! অপচয় করছ কেন? সা’দ (রা.) বললেন, অজুতে কি অপচয় হয়? নবীজি (সা.) বললেন, হ্যাঁ। প্রবহমান নদীতে বসেও যদি তুমি অতিরিক্ত পানি ব্যবহার করো তা অপচয়।’ (ইবনে মাজাহ)।  
অপচয় এবং কৃপণতা কোনোটিই অনুমোদিত নয় ইসলামে। যারা অপচয় এবং কৃপণতার পথ পরিহার করে মিতব্যয়িতার পথ অবলম্বন করবে আল্লাহ তাদের নিজের বান্দা হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এরশাদ হয়েছে, ‘(রহমানের বান্দা তো তারাই) যারা অপব্যয়ও করে না আবার কৃপণতাও করে না। তাদের পন্থা হয় উভয়ের মধ্যবর্তী।’ (সূরা ফুরকান : ৬৭)। 


নির্বাচনি ইশতেহারে ইসলামের প্রেরণা
ইশতেহারে বিচারবহির্ভূত হত্যাকা- বন্ধের ব্যাপারে স্পষ্ট বক্তব্য দেখতে পাওয়া যায়
বিস্তারিত
মানুষ মানুষের জন্য
শুক্রবার মানেই সাপ্তাহিক ছুটি। ছুটির দিন নানাজন নানাভাবে কাজে লাগিয়ে
বিস্তারিত
শীতের নেয়ামত বিচিত্র পিঠা
  প্রকৃতিতে বইছে শীতের সমীরণ। কুহেলিঘেরা সকাল মনে হয় শ্বেত হিমালয়।
বিস্তারিত
মহামানবের অমীয় বাণী
মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এরশাদ করেন, ‘যে আমার উম্মতের স্বার্থে
বিস্তারিত
যুদ্ধাহত শিশুদের কথা
৩ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে ‘নিউ এরাব’ আরব বিশ্বের
বিস্তারিত
সুদানে গ্রামীণ ছাত্রদের শহুরে জীবন
যেসব সুদানি ছাত্র পড়াশোনা করতে গ্রাম থেকে শহরে এসেছে তারা
বিস্তারিত