দুর্নীতি মামলায় খালাস চেয়ে খালেদা জিয়ার আপিল

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের বিরুদ্ধে খালাস চেয়ে আপিল করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। রোববার (১৮ নভেম্বর) হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আপিলটি করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার নওশাদ জমির।

এই মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসনের সাত বছরের সাজা ও ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড হয়।

নওশাদ জমির জানান, খালেদা জিয়া নিম্ন আদালতে ন্যায় বিচার পাননি। তাই ওই রায় বাতিল করে খালেদা জিয়ার খালাসের আবেদন করা হয়েছে। শিগগিরই আপিল গ্রহণযোগ্যতার শুনানির জন্য হাইকোর্টে বিষয়টি উপস্থাপন করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসনসহ চার আসামিকে ৭ বছর কারাদণ্ড দেন পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন রোডের পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫-এর বিচারক মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে প্রত্যেককে দশ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড দেয়া হয়। এই রায়ের বিরুদ্ধে আজ আপিল করলেন খালেদা জিয়া।

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি, হত্যা, নাশকতা, রাষ্ট্রদ্রোহ, মানহানি, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতিসহ মোট ৩৪টি মামলা রয়েছে। এর মধ্যে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট ও অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় রায় হয়েছে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে ১০ বছরের দণ্ড দিয়েছেন নিম্ন আদালত। দুটি মামলায় ১৭ বছর সাজা নিয়ে কারাবন্দি বিএনপির এই শীর্ষ নেতা।


জামায়াত ক্ষমা চাইলেও যুদ্ধাপরাধের বিচার
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
‘জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া ইস্যু রাজনৈতিক
জামায়াতের একাত্তরের ভূমিকায় ক্ষমা চাওয়া নিয়ে দলটির অভ্যন্তরে যে প্রতিক্রিয়া
বিস্তারিত
জামায়াত ছাড়লেন ব্যারিস্টার রাজ্জাক
বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিরোধিতার পর দেশের মানুষের কাছে ‘ক্ষমা না চাওয়ায়’
বিস্তারিত
বিএনপির গণশুনানি গণতামাশা ছাড়া কিছ্ইু
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
নয় বছর পর মধুর ক্যান্টিনে
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ছাত্রদল,
বিস্তারিত
খালেদার মুক্তির এখতিয়ার প্রধানমন্ত্রীর হাতে
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আজ বলেছেন, কারাগার থেকে বিএনপি চেয়ারপার্সন
বিস্তারিত