ভোর ও সন্ধ্যার শব্দের কথারা

নৈঃশব্দ্যের কাছে আমার কিছু শব্দ জমা ছিল 
সেইসব শব্দ ছিল মূক ও বধির। তবে চোখ দুটি যেন ঈগল-বাজপাখি।

কুয়াশার প্যারাশুট গায়ে একে একে নেমে আসে ভোর
শিকারি বেড়ালের মতো হেঁটে বেড়ায় পুরোনো শহরের অলিতে-গলিতে,
ঈগল ও বাজপাখি চোখ দেখে যায় ভোরের আনাগোনা;
অথচ সন্ধ্যা হলেই কোনো এক নামহীন নিশাচর ডেকে যায়।
হয়তো সেটি খুঁড়–লে প্যাঁচা, নয়তো অন্য কিছু। শব্দেরা ঠিক শুনতে পায়।


পাথরের ফাঁক-ফোকর দিয়েই
  বিজয়ী ঝকঝকে চোখগুলো এখন তন্দ্রা আর ঝিমুনিতে ঝাপসা।
বিস্তারিত
বিজয়ের তানপুরা
  হাসপাতালের করিডোর ছেড়ে রাস্তায় নামলেন ডাক্তারেরা তড়িঘড়ি তাদের উচ্চারণÑ
বিস্তারিত
রোদ
  রোদ ছিল ব’লে শয্যাপ্রান্তে উম ছিল ঘোর ছিল, ঘুম
বিস্তারিত
অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ
  বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাঃ গৌরব আর সৌরভে সম্ভার, মুক্তিযোদ্ধারা;
বিস্তারিত
কোটি স্বপ্নের একটি নাম
  এসেছিল মাঠের কিষান, কিষানি বধূ ফসলের শিল্প গড়া, চাষিরা, 
বিস্তারিত
স্বপ্নসিক্ত ম্যুরাল
  তুমি থাকলে শস্যবীজ পুষ্ট হয় নদীস্রোত কুলুকুলু বহে, ফুল
বিস্তারিত