যে বৃক্ষে বাতাস জমেনি

আমাদের দুই জোড়া হাতে যে বৃক্ষটি রোপণ করেছি। সেটি যেদিন দুই পাতায় সরু হয়েছে। বাতাসে দোল খাওয়ার আগে ভুলবশত তোমার পায়ের চাপে মাটির দেহে বিলীন হয়ে যায়। ধরে নাও আমি কষ্ট পাইনি

মোটেও। আমি জানি এটি তোমার ভুল নয়, ইচ্ছা করে তুমি তোমার নরম পায়ে রোলার চালাও। যেমন করে আমার দেহের উপর যুদ্ধ ট্যাংক চালিয়ে গেলে।


আত্মজীবনী লিখলে ঘরে ও বাইরে
ঢাকায় বাতিঘর আয়োজন করে ‘আমার জীবন আমার রচনা’ শীর্ষক আলাপচারিতা।
বিস্তারিত
যে নদীর মন বোঝে
পদ্মা মেঘনার মতো দুই ভাগ হয়ে গেছে মানুষ চলে পাশাপাশি তবুও
বিস্তারিত
সেই তুমুল অঘ্রানলোকে
সবকিছু উগরে দিয়েছে ওরা  প্রীতি ও বিচ্ছেদ, সুর ও সুরভী, রতি
বিস্তারিত
চোরাচালানি
কুয়াশায় আচ্ছন্ন প্রতিদিনের সন্ধ্যা গভীর রাতে শিয়ালের কান্না শীতের আগমনী
বিস্তারিত
অভিশাপ
অভিশাপে কপালের আধখান শেষ। ভাগ্যরা আর পাশে নেই। উড়ে গেছে
বিস্তারিত
পিরামিড
রোদেরা চোখ মেলে তাকায় তখন পৃথিবীতে গড়ে ওঠে স্বপ্নের পিরামিড প্রাচীন
বিস্তারিত