অপারগতা

না তুষার ঝড়

না মাইনাস ফোর্টি
শীতের রাত তো,
বুড়োটা কিছুক্ষণ আগেও কাঁপছিল
ঠকঠক ক’রে
এখন কাঁদছে
হুহু ক’রে
কোনো লুকোছাপা নেই
ছেঁড়া কাঁথাটা আর কত লড়াই করতে পারে?

সূর্য দেখার ভাগ্য কি তার হবে?
রোদকে পিঠ দেখিয়ে
কড়-কড়ে ঠান্ডা ভাত
আর মাছের ঝাল-ঝোল
যেনবা থক-থকে জেলি
কয়েকটা কাঁচা লঙ্কা
এই মুহূর্তে আর কোনো স্বপ্ন নেই বুড়ো ভিখিরির।

লোকটার কাঁপুনি
কান্না
দীর্ঘশ্বাসগুলোকে...
দুঃখিত, আমি অনুবাদ বলতে পারছি না,
এমন কী অভিনয়!


ভাতঘুম
সুমন রহমান লাজুক ভঙিতে হাসে। তার মাথাটা নুয়ে আসে বুকের
বিস্তারিত
কাঠমান্ডুর দরবারে
নেপালের কাঠমান্ডুতে অবস্থিত হনুমান ধোকা দরবার ১৯৭৯ সালে ইউনেস্কোর বিশ্ব
বিস্তারিত
কবিতা
কাজী জহিরুল ইসলাম গৃহগল্প দাঁড়াবার জন্য কিছুটা সময় নেয় এরপর টুপ
বিস্তারিত
গণসমুদ্রচোখ আমাকে পাহারা দেয়
দাগহীন আত্মসমর্পণ, গোটা থানকুনি বাঁক তা দিচ্ছে। ধুলোর গায়ে-বেদনায়, প্রয়াণে;
বিস্তারিত
পথিক
তোমার বাস কোথায় গো পথিক, দেশে না বিদেশে আমি তোমায়
বিস্তারিত
নদী এবং নদীরা
হ্যাঁ, মেয়েটির নাম ছিলÑ নদী! পারভীন জাহান নদী। হয়তো আরও
বিস্তারিত