কতিপয় বিচ্ছিন্ন মুহূর্তের টীকা

 

১.
নিরন্তর শুষ্কতার বশে আমি এক মরুকাঠ; অথচ ঠান্ডাজলপূর্ণ কিছু পানপাত্র 
এমন অনুকূল জলাধার ভেবে বারবার আমাকেই পান করতে চায় কেন!
২.
ব্যথা ও বাসনার বশে অবিরাম ডানা-ঝাপটাই
আমি এক হৃদয়ের রোগী...
৩.
মন যা ভাবে, মুখে তা বলতে পারি না লাজেÑ
যায় না সেসব লেখা । 
ফলে না তো সবকিছু কাজেÑ
যা কিছু চাইছে হৃদয় নিরবধি...      
৪.
জীবন সমরে ঝড় আসে অগ্নিজ্বালা
কেউ মেঘ রঙধনু কেউ হানে শিলা!
৫.
রমনাপার্কে বৃক্ষদের অবিশ্রাম পাতাঝরা দেখে ভাবনাকুল একদল পরী।
ইস্, ওরা যদি অমৌসুম হতো, অকাল ঋতুর দোষে ফুরাতো না শ্যামল সুরভী, অনাহূত শীত এসে নষ্ট হলো কুঞ্জ-কানন!
কেনো ভাঙে পুষ্পসাজ; কেন এই পাতার রোদন!
প্রেমিকের বাহুডোর থেকে ভাবে ওরা ব্যথাতুর মনে: উত্তরের ঊষর প্রান্ত হতে চুপেচুপে আমি আজ শোনেছি সেসব।


রুদ্রর কবিতা উচ্চারণ থেকে কথনে
রুদ্রর বহির্মুখী চেতনারাশির ওপর তার ভাবকল্প ও সংরাগবহুলতার তোড় আছড়ে
বিস্তারিত
আলো জেলে রাখি কবিতার খাতায়
কী নীরব রাত! একা একা বসে লিখছি। লেখার মাঝে দুঃখগুলো
বিস্তারিত
রৈখিক রক্তে হিজলফুল
বৃষ্টি হৃদয় উঠোন ভিজিয়ে যায় বিপ্রতীপ বিভাবন আঁধারের ক্লান্তিলগ্নে চোখের
বিস্তারিত
অপারগতা
না তুষার ঝড় না মাইনাস ফোর্টি শীতের রাত তো, বুড়োটা কিছুক্ষণ
বিস্তারিত
যন্ত্রণার দীর্ঘশ্বাস
  অলীক স্বপ্ন, অসীম দহন, সমুখের হিসাব নিকাশ প্রদীপের শিখা ছিল
বিস্তারিত
শীতের কদর
শীতের দেশে থাকতে থাকতে বরফ হয়েছি আমি শুষ্ক বোধ আর রুক্ষ
বিস্তারিত