চকরিয়ায় অপহরণের ১৮ ঘণ্টা পর শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার

কক্সবাজারের চকরিয়ায় অপহরণের ১৮ ঘণ্টা পর আড়াই বছর বয়সী শিশু আল ওয়াছির বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে চকরিয়া উপজেলার মাতামুহুরী ব্রিজের নিচে নদীর পাড় থেকে ওই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মুন্নী আক্তার নামের এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃত মুন্নী আক্তার পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাটাখালী এলাকার খোন্দকার পাড়া গ্রামের খলিলুর রহমানের মেয়ে। নিহত শিশু আল ওয়াছি চকরিয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের সবুজবাগ এলাকার সাহাব উদ্দিন ও রুনা আক্তার দম্পতির ছেলে। সোমবার (২১ জানুয়ারি) বিকাল ৪টার দিকে বাসার সামনে খেলা করার সময় অপহৃত হয় ওয়াছি। 

নিহত ওয়াছির আত্মীয় চকরিয়া পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর রেজাউল করিম বলেন, সোমবার বিকালে বাসার বাইরে উঠানে খেলা করছিল শিশু ওয়াছি। এ সময় সময় হঠাৎ বোরকা পরিহিত নেকাব বাঁধা এক নারী তাকে হাতে একটি চিপস ধরিয়ে দিয়ে কোলে তুলে নিয়ে যায়। পরে আশপাশ এলাকায় খোঁজাখুঁজির পরও তাকে না পেয়ে বিষয়টি থানা পুলিশের কাছে অবহিত করা হয়। পরে পুলিশ তাৎক্ষণাৎ অভিযান চালিয়ে উপজেলার বাটাখালী ব্রিজ এলাকা থেকে মুন্নি আক্তার নামের এক নারীকে আটক করে। 

তিনি আরো বলেন, অপহৃত হওয়ার পর থেকে শিশু আল ওয়াছিকে উদ্ধারে রাতব্যাপী পুলিশসহ নিকট আত্মীয়রা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। কিন্তু কোথাও হদিছ মেলাতে পারেনি। আজ মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে মাতামুহুরী ব্রিজের নিচে নদীর পাড়ে বস্তাবন্দি অবস্থায় একটি শিশুর লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন আমাদের খবর দেয়। তখন আমরা গিয়ে লাশ শনাক্ত করার পর সকাল ১০টার দিকে পুলিশসহ গিয়ে নিহত ওয়াছির লাশ উদ্ধার করি।

কাউন্সিলর রেজাউল করিম আরও বলেন,  লাশের শরীরে কোন আঘাতের চিহ্ন না থাকলে মুখে স্কচ ট্যাপের গাম লাগানো ছিল। ধারণা করা হচ্ছে শ্বাসরোধ করেই শিশু ওয়াছিকে হত্যা করেছে ঘাতকরা। 

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, চকরিয়া পৌর এলাকার সবুজবাগ আবাসিক এলাকা থেকে আল ওয়াছি নামের এক শিশুকে অপহরণের অভিযোগ পেয়ে সোমবার বিকাল থেকে মঙ্গলবার ভোররাত পর্যন্ত পুলিশের একাধিক টিম তাকে উদ্ধারে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়। মঙ্গলবার সকালে মাতামুহুরী ব্রিজের নিচে নদীর পাড়ে ওই শিশুর বস্তাবন্দি লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মুন্নী আক্তার নামে এক নারীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

ওসি আরও বলেন, কী কারণে শিশু ওয়াছিকে অপহরণের পর হত্যা করা হয়েছে তা জানতে কয়েকটি বিষয়কে সামনে রেখে মাঠে কাজ করছে পুলিশ। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার প্রস্তুতি চলছে।


চকরিয়ায় জমির বিরোধে কৃষককে পিটিয়ে
কক্সবাজারের চকরিয়ায় জমি নিয়ে বিরোধে আব্দু শুক্কুর (৬৫) নামের এক
বিস্তারিত
সখীপুরে অজ্ঞান করে বন্ধু নিয়ে
টাঙ্গাইলের সখীপুরে মিষ্টির সঙ্গে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অজ্ঞান অবস্থায় বোন
বিস্তারিত
নকলায় কথিত মাজারের চা পানে
শেরপুরের নকলা উপজেলায় কথিত মাজারের চা পান করে অন্তত ১৪
বিস্তারিত
দেশের শিক্ষাব্যবস্থাকে আরও উন্নত করতে
দেশের শিক্ষাব্যবস্থা অনেক দূর এগিয়েছে, এগুতে হবে আরও বহুদূর- এমন
বিস্তারিত
যুগান্তরের কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি কারাগারে
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দোহার থানায় পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।
বিস্তারিত
মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পেলেন সিরাজগঞ্জের পাতাসী
স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার বীরাঙ্গনা পাতাসী (৭০)
বিস্তারিত