প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রে রাজনীতিকরা গণভবনে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে চা-চক্রে যোগ দিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতারা। শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৩টার পর গণভবনে এই চা-চক্র শুরু হয়।

গণভবন সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রীর সরকারি এই বাসভবনের সবুজ লনে চা-চক্র অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে উপস্থিত নেতাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন প্রধানমন্ত্রী। 

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাড়ির দক্ষিণের সবুজ লনের এই অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও জাতীয় পার্টি, জাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, ইসলামী ঐক্যজোট, গণতন্ত্রী পার্টি, সাম্যবাদী দলসহ ১৪ দলীয় জোট, মহাজোট ও অন্যান্য রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতারা উপস্থিত হন।

অতিথিদের বসার জন্য গণভবনের সবুজ লনে চেয়ার, টেবিল, মোড়া, মাদুরের ব্যবস্থা করা হয়। নানা খাবারে আপ্যায়িত করা হয় অতিথিদের। ফুচকা, চটপটির জন্য আলাদা আলাদা টেবিল রাখা হয়। পিঠার টেবিলে ছিল পাটিসাপটা, ভাপা, চিতই, পুলি প্রভৃতি। ছিল বিভিন্ন ধরনের কাবাব, নানরুটি, পরোটা। এছাড়া নানা ধরনের শরবত, কফিও ছিল।


প্রধানমন্ত্রী গণভবনের মাঠে আসেন বিকেল ৪টার পরে। তিনি লনে ঘুরে ঘুরে অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, জ্যেষ্ঠ আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু, বেগম মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নুরুল ইসলাম নাহিদ, ওবায়দুল কাদের, ফারুক খান, আব্দুল মতিন খসরু, আব্দুর রাজ্জাক, দীপু মনি, শ ম রেজাউল করিম, জাহাঙ্গীর কবির নানক, হাছান মাহমুদ, ইকবালুর রহিম, দেলোয়ার হোসেন, আবদুস সোবহান গোলাপ, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বাহাউদ্দিন নাসিম, এনামুল হক শামীম, বিপ্লব বড়ুয়া।

জাতীয় পার্টির নেতাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদ, দলের কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গা, সাবেক মহাসচিব রুহুল আমীন হাওলাদার, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মুজিবুল হক চুন্নু, আবু হোসেন বাবলা প্রমুখ।

জাতীয় পার্টির (জেপি) সভাপতি আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, শিরিন আখতার, জাসদের (আম্বিয়া) মঈনুদ্দিন খান বাদল, নাজমুল হক প্রধান, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন, ফজলে হোসেন বাদশাও ছিলেন।

এছাড়া অংশ নেন বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি একিউএম কদরুদ্দোজা চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা এমএ মান্নান, মাহি বি. চৌধুরী, শমশের মবিন চৌধুরী। 

ইসলামী ঐক্যজোটের সভাপতি মিজবাহুর রহমান চৌধুরী, তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি নজিবুর বশর মাইজভাণ্ডারি, সাম্যবাদী দলের সভাপতি দিলীপ বড়ুয়া, বিএনএফ সভাপতি নাজমুল হুদা প্রমুখ উপস্থিত হন।

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও কার্যালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও চা-চক্রে শরিক হন।

এদিকে সংলাপে অংশ নিলেও প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রে অংশ নিচ্ছে না জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। গতকাল শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান তারা।

প্রসঙ্গত, এর আগে একাদশ সংসদ নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর ঢাকায় কর্মরত বিদেশি কূটনীতিক এবং সাহিত্য-সাংস্কৃতিক অঙ্গনের বিভিন্ন ব্যক্তিদের সঙ্গে চা-চক্রে মিলিত হয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী। 


নববধূ অপহরণ, ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার
কুমিল্লার দেবিদ্বারে বৌ-ভাতের অনুষ্ঠান থেকে নববধূ অপহরণ মামলার প্রধান আসামি
বিস্তারিত
আতিকুল ইসলামকে ব্যবসায়ী নেতাদের সমর্থন
ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলামকে সমর্থন
বিস্তারিত
জামায়াত ক্ষমা চাইলেও যুদ্ধাপরাধের বিচার
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল
বিস্তারিত
ডাকসু নির্বাচনে পর্যবেক্ষকের ভূমিকায় থাকবে
রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে মহান ভাষা দিবস ও আন্তর্জাতিক
বিস্তারিত
‘জামায়াতের ক্ষমা চাওয়া ইস্যু রাজনৈতিক
জামায়াতের একাত্তরের ভূমিকায় ক্ষমা চাওয়া নিয়ে দলটির অভ্যন্তরে যে প্রতিক্রিয়া
বিস্তারিত
জামায়াত ছাড়লেন ব্যারিস্টার রাজ্জাক
বাংলাদেশের স্বাধীনতায় বিরোধিতার পর দেশের মানুষের কাছে ‘ক্ষমা না চাওয়ায়’
বিস্তারিত