তাকওয়ার চার স্তর

প্রথম স্তর : যেসব বিষয়বস্তু বা যে সম্পদ হারাম হওয়ার বিষয়ে শরিয়তের নির্দেশ বিদ্যমান; তা না করা বা তেমন কিছু ব্যবহার না করা। অর্থাৎ ফতোয়ার বিধান মোতাবেক আমল করে যাওয়া, হালাল-হারাম মান্য করা। এটি হচ্ছে সর্বসাধারণের তাকওয়া।

দ্বিতীয় স্তর : সালেহিনের তাকওয়া অর্থাৎ যারা সংশয়যুক্ত বিষয়াদি থেকেও বেঁচে থাকে। হাদিসে এসেছেÑ মহানবী (সা.) এরশাদ করেন, ‘যা কিছুতে সংশয় বিদ্যমান তা পরিহার কর এবং যেসবে সংশয় নেই তা গ্রহণ কর।’
তৃতীয় স্তর : মুত্তাকিদের স্তর। রাসুল (সা.) এরশাদ করেন, ‘মুসলমানরা যতক্ষণ পর্যন্ত বিপজ্জনক বিষয়াদিতে জড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় আপাতত বিপজ্জনক নয় এমন সব বিষয় থেকেও বিরত না থাকবে; ততক্ষণ পর্যন্ত তারা মুত্তাকির স্তরে উপনীত হতে পারবে না।’ তার মানে, মুত্তাকিদের কাছে শুধু ওই সম্পদ ও বস্তু হালাল, ব্যবহারযোগ্য যাতে উপস্থিত সময়েও কোনোরকম সংশয় নেই এবং ভবিষ্যতেও তাতে আশঙ্কার কিছু নেই।
চতুর্থ স্তর : সর্বোচ্চ স্তরের তাকওয়া হচ্ছে সিদ্দিকিনের তাকওয়া। অর্থাৎ যা কিছু আহার করলে আল্লাহর ইবাদত-আনুগত্যে শক্তি-সামর্থ্য অর্জনের কিছু নেই; তা পরিত্যাগ করা। (দরসে কোরআন : পৃ.-৪৯৭)।


ময়ূরের পেখম উপড়ানোর রহস্য
হে ময়ূর! তোমার পালক পেখম ছিঁড় না, উপড়াবে না। বরং
বিস্তারিত
গিবতকারী অপদস্থ হবেই
ইসলামের দৃষ্টিতে গিবত একটি জঘন্য অপরাধ। এর কারণে মায়া-মমতা, স্নেহ-ভালোবাসা
বিস্তারিত
পীর হওয়ার শর্ত ও যোগ্যতা
বর্তমানে অনেকের ধ্যানধারণা বিপরীত মেরুর দিকে ধাবিত হচ্ছে বলে মনে
বিস্তারিত
শবেবরাত অস্বীকার করা ঠিক নয়
মরক্কোর ক্যাসাব্লাঙ্কায় অবস্থিত ‘দ্বিতীয় হাসান মসজিদ’ হচ্ছে বর্তমানে বিশ্বের সর্বোচ্চ
বিস্তারিত
ন তু ন প্র
বইয়ের নাম : ডাবল স্ট্যান্ডার্ড   লেখক : ডা. শামসুল আরেফীন 
বিস্তারিত
হেযবুত তওহীদের প্রতিবাদ এবং লেখকের বক্তব্য
দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ ১২ এপ্রিল ২০১৯ সংখ্যার ১০নং ‘ইসলাম ও
বিস্তারিত