স্ন্যাপচ্যাটের ফিচার

দীর্ঘদিন চুপচাপ থাকার পর বেশ আড়ম্বরের সঙ্গে জানান দিল কনটেন্ট শেয়ারিং ও মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম স্ন্যাপ। এবার ফেইসবুককে টেক্কা দিতে বেশ কিছু ফিচার নিয়ে হাজির হয়েছেন কোম্পানির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ইভান স্পিগাল। এর মধ্যে থাকছে নতুন ক্যামেরা ফিচার, গেমিং প্ল্যাটফর্ম, নতুন ডেভেলপার টুল এবং আরও কিছু। ২০১১ সালের সেপ্টেম্বরে কোম্পানির প্রতিষ্ঠা এবং ২০১২ সালের মে মাসে সিইও হিসেবে দায়িত্ব নিলেও স্পিগাল প্রথম জনসমক্ষে আসেন ২০১৭ সালে। এরপর গণমাধ্যমে আর তেমন কথা বলেননি তিনি। অর্থাৎ স্ন্যাপ বরাবরই কোম্পানির গোপনীয়তা রক্ষা করে গেছে। অবশেষে চলতি সপ্তাহে কোম্পানির ইতিহাসে বৃহত্তম উন্মুক্ত আয়োজন করা হয়। অংশীদারদের নিয়ে দিনব্যাপী এ ‘পার্টনার সামিটে’ কোম্পানির বড় পরিকল্পনার ঘোষণা আসে। ফেইসবুকের সঙ্গে পাল্লা দিতে প্রধান দুটি কৌশলের ইঙ্গিত দিয়েছে স্ন্যাপ। কৌশল দুটি হলো অ্যাপ ব্যবহারকারীদের বেশি সময় ধরে রাখা এবং টিন্ডার ও হাউজপার্টির মতো কনটেন্ট শেয়ারিং অ্যাপের সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে স্ন্যাপের উপস্থিতির ব্যাপক বিস্তৃতি ঘটানো। এ ছাড়া, বহু প্রতীক্ষার পর স্ন্যাপ নতুন বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক উন্মোচন করেছে।
এ ধরনের পরিকল্পনাকে বেশ সাহসী বলেই বর্ণনা করছেন প্রযুক্তিবিদরা। যদিও এতে ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ানোর পরিষ্কার কোনো সম্ভাবনা নেই এবং স্ন্যাপের ভবিষ্যৎ সম্পর্কেও সুনির্দিষ্ট ধারণা পাওয়া যাচ্ছে না। যদিও স্ন্যাপচ্যাটে নতুন গ্রাহক যুক্ত করার প্রক্রিয়া নতুনভাবে শুরু হয়েছে। তাছাড়া বিশেষ করে তরুণদের ধরে রাখতে এবং তাদের কাছে আরও আকর্ষণীয় করতে স্ন্যাপ উল্লেখযোগ্য সাফল্য দেখিয়েছে।
নতুন পদক্ষেপের মধ্যে কিশোর বয়সিদের দিকে আরও বেশি নজর দিচ্ছে স্ন্যাপ। কিশোরদের আরও বেশি আকৃষ্ট করতে এবং বেশি সময় ধরে রাখতে ‘টু সাইডস’-এর মতো ফিচার এবং নতুন গেমিং প্ল্যাটফর্মের দিকে বেশি নজর দিচ্ছে কোম্পানি। ক্যামেরা ফিচারেও কিছু আপডেট এসেছে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একটি হলো অ্যাপের মধ্যেই বিভিন্ন গাণিতিক সমস্যার সমাধান করতে পারা। এসব ফিচারের মাধ্যমে কিশোর ও তরুণদের আরও বেশি আকৃষ্ট করতে সক্ষম হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার কোম্পানির পক্ষ থেকে জানানো হয়, যুক্তরাষ্ট্রের ১৩-৩৪ বছর বয়সিদের ৭৫ শতাংশ এবং ১৩-২৪ বছর বয়সিদের ৯০ শতাংশকেই এ প্ল্যাটফর্মে আনা সম্ভব হয়েছে। সিইও স্পিগালের দাবি, এ হার ফেইসবুক অথবা ইনস্টাগ্রামের চেয়ে ঢের বেশি। অ্যাপের বাইরে এতদিন স্ন্যাপের উপস্থিতি ছিল না। কোম্পানির প্রবৃদ্ধির পথে এটিকে বড় বাধা মনে করা হতো। এবার অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অন্য স্থানেও স্ন্যাপকে পাওয়া যাবে। এর ফলে স্ন্যাপচ্যাটের ব্যবহারকারীরা অ্যাপের ‘স্টোরিজ’ ফিচার থেকে টিন্ডার বা হাউজপার্টির মতো প্ল্যাটফর্মে কনটেন্ট শেয়ার করতে পারবেন। ইনস্টাগ্রামেও স্ন্যাপচ্যাটের ‘স্টোরিজ’-এর মতো একটি ফিচার আছে। কিন্তু স্ন্যাপচ্যাটের অত্যন্ত জনপ্রিয় এ ফিচারে এখন ক্রস প্ল্যাটফর্ম সুবিধা যুক্ত হওয়ায় আরও বেশি ব্যবহারকারী যুক্ত হবে বলে আশা করা যায়। সবশেষে স্ন্যাপের বিজনেস ফিচার ‘স্ন্যাপ অডিয়েন্স নেটওয়ার্ক’ কোম্পানির ব্যবসায় বড় ধরনের অবদান রাখবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে। এর মাধ্যমে স্ন্যাপের বিজ্ঞাপনদাতারা অন্য অ্যাপেও বিজ্ঞাপন দেখানোর সুযোগ পাবেন।


বাংলাদেশে ই-স্ক্যান অ্যান্টিভাইরাসের ১০ বছর
ই-স্ক্যান বাংলাদেশের ১০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ১৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় রাজধানীর
বিস্তারিত
সৌরজগতের প্রান্ত থেকে তোলা পৃথিবীর
সৌরজগতের সীমান্ত থেকে ভয়েজার-১ এর তোলা পৃথিবীর একমাত্র ছবি ‘পেল
বিস্তারিত
ঢাকায় হয়ে গেল ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স
ঢাকায় হয়ে গেল দুই দিনব্যাপী দ্বিতীয় ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন সাইবার
বিস্তারিত
প্রযুক্তি দিয়ে লড়ছে চীন
জনগণের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ ও নিয়ন্ত্রণের জন্য চীন যে প্রযুক্তি তৈরি
বিস্তারিত
চট্টগ্রামে বিডিজবস কারিগরি চাকরি মেলায়
চট্টগ্রামের জিইসি কনভেনশন হলে হয়ে গেল দুই দিনব্যাপী বিডিজবস কারিগরি
বিস্তারিত
ডিজিটাল রেভিনিউ মোবিলাইজেশন নিয়ে আলোচনা
সম্প্রতি শেষ হওয়া সফটএক্সপোর প্রথম দিন ‘ইমপ্লিমেন্টেশন অব ডিজিটাল রেভিনিউ
বিস্তারিত