অভিজিতের বাবা অধ্যাপক অজয় রায় আর নেই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও লেখক অভিজিৎ রায়ের বাবা অজয় রায় আর নেই। আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে রাজধানীর শাহাবাগে অবস্থিত বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি দীর্ঘদিন বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে ভুগছিলেন।

ড. অজয় রায় ১৯৩৫ সালের পয়লা মার্চ দিনাজপুরে জন্মগ্রহণ করেন। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ এবং যুদ্ধোত্তর বাংলাদেশের প্রায় সব গণতান্ত্রিক ও নাগরিক আন্দোলনের সামনের কাতারের মানুষ।

স্কুল এবং কলেজজীবনে পড়াশোনা করেছেন দিনাজপুরে। ১৯৫৭ সালে এমএসসি পাশ করে যোগ দেন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজে। তিনি ১৯৫৯ সাল থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিদ্যা বিভাগে শিক্ষকতা করেছেন। তিনি ১৯৬৬ সালে ইংল্যান্ডের লিডস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৬৭ সালে সেখানেই করেন পোস্ট ডক্টরেট। ১৯৬৭ সালে শিক্ষক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পুনরায় যোগদান করেন এবং অবসর নেওয়ার আগ পর্যন্ত সেখানেই কর্মরত ছিলেন।

দেশি এবং বিদেশি বহু জার্নালে তার পেপার প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর তিনি বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটির জেনারেল সেক্রেটারি পদে ছিলেন। তিনি সম্প্রীতি মঞ্চের সভাপতি, বাংলাদেশ ইতিহাস পরিষদের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং এশিয়াটিক সোসাইটির বিজ্ঞান বিভাগের সম্পাদক। ২০১২ সালে পদার্থবিজ্ঞানে একুশে পদক অর্জন করেন অজয় রায়।

প্রসঙ্গত, অধ্যাপক অজয় রায়ের ছেলে ব্লগার-লেখক অভিজিৎ রায় ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসির উল্টো পাশে জঙ্গিদের হামলায় নিহত হন।


সখীপুরে মাদকসেবীকে ৬ মাসের কারাদণ্ড
টাঙ্গাইলের সখীপুরে মাদকসেবনের দায়ে রায়হান উদ্দিন (২০) নামের এক যুবককে
বিস্তারিত
সিরাজগঞ্জে হত্যা মামলার প্রধান আসামী
সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জ উপজেলার নিশ্চিন্তপুর গ্রামের আনসার সদস্য মতিন হত্যা মামলার
বিস্তারিত
প্রতিবন্ধীদের জীবনমান উন্নয়নে কাজ করছে
বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন- প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়, তাদের জীবনমান
বিস্তারিত
আকবর আলীসহ দুই কৃতি খেলোয়ারকে
অনূর্ধ-১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট জয়ী রংপুরের কৃতি সন্তান অধিনায়ক আকবর আলী
বিস্তারিত
যোগদানের ২৭ দিনের মাথায় অধ্যক্ষের
বাউফল সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ রফিকুল ইসলামকে যোগদানের ২৭ দিনের
বিস্তারিত
ফেনীতে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনবিষয়ক
‌'লঙ্গিত হলে ভোক্তা-অধিকার, অভিযোগ করলেই পাবেন প্রতিকার'- এই প্রতিপাদ্য বিষয়
বিস্তারিত