logo
প্রকাশ: ০৫:৪৯:৪২ PM, শুক্রবার, মে ২২, ২০২০
করোনা দুর্গতদের জন্য মেডেল বিক্রি করল ছোট্ট হাবিব
অনলাইন ডেস্ক

বয়স মাত্র ৬ বছর। দেশে করোনাভাইরাসের কারণে যে দেশে মহামারি চলছে সেটা বোঝার মতো বয়স তার হয়নি। তারপরেও টিভির সংবাদে খেটে খাওয়া কর্মহীন সাধারণ মানুষের কষ্ট দেখে নিজের মনেই কিছু একটা ভেবেছে। তার ছোট্ট জীবনের বড় অর্জন হলো একটি মেডেল। রংপুর বিভাগ সাংবাদিক সমিতির খেলাধূলা প্রতিযোগিতায় সে এই মেডেলটি জিতেছিল। এখন সে ওই মেডেল বিক্রি করে সেই টাকায় করোনা দুর্গতদের জন্য কিছু করতে চায়। পরে ছেলের অনুরোধে মা তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে মেডেলটি বিক্রির ব্যাপারে একটি স্ট্যাটাস দেন।

স্ট্যাটাস দেওয়ার পর অভাবনীয় সাড়া মেলে। রাজধানীর গোপীবাগ এলাকার বাসিন্দা হালিমা-জামান দম্পতির ছেলে মো. হাবিবুর রহমানের এই ইচ্ছাপূরণ করতে এগিয়ে আসেন আমেরিকা প্রবাসী বাংলাদেশি মো. সাইফুর রহমান চৌধুরী টিপু। তিনি ৪০ হাজার টাকায় কিনে নেন হাবিবের মেডেলটি। মেডেল বিক্রির পুরো অর্থ হাবিবের মা-বাবার মাধ্যমে সহায়তা করা হবে করোনাভাইরাসের এই দুঃসময়ে অসহায় হয়ে পড়া মানুষদের।

এ প্রসঙ্গে মো. হাবিবুর রহমানের মা-বাবা বলেন, 'যিনি ‌আমাদের এই ছোট্ট ছেলের ইচ্ছাপূরণ করেছেন ও আগামী ২০ বছর তার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখবেন বলে জানান। আমরা কতটা খুশি হয়েছি তা আপনাদের বলে বোঝাতে পারব না। যা কিনা কোটি টাকা দিয়েও কেনা সম্ভব নয়। এই হৃদয়বান মহান মানুষটির প্রতি আমরা সারা জীবন কৃতজ্ঞ থাকব।'

হাবিবের ইচ্ছাপূরণ করা মো. সাইফুর রহমান চৌধুরী টিপু দীর্ঘদিন যাবৎ প্রবাস জীবন যাপন করে আসছেন। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী জেলায়। সোশ্যাল সাইটে ছোট্ট এই শিশুটির ইচ্ছার কথা জেনে তিনি আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

শুধু মেডেল কেনাই নয়, হাবিবের মা-বাবাকে ফোনে বলেন, 'আগামী ২০ বছর আমি আপনার ছেলের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখব'। এই মানবিক মানুষটির ইচ্ছাকে হাবিবের মা-বাবা সর্বোচ্চ সম্মান জানান।

সম্পাদক ও প্রকাশক : কাজী রফিকুল আলম । সম্পাদক ও প্রকাশক কর্তৃক আলোকিত মিডিয়া লিমিটেডের পক্ষে ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫ থেকে প্রকাশিত এবং প্রাইম আর্ট প্রেস ৭০ নয়াপল্টন ঢাকা-১০০০ থেকে মুদ্রিত। বার্তা, সম্পাদকীয় ও বাণিজ্যিক বিভাগ : ১৫১/৭, গ্রীন রোড (৪র্থ-৬ষ্ঠ তলা), ঢাকা-১২০৫। ফোন : ৯১১০৫৭২, ৯১১০৭০১, ৯১১০৮৫৩, ৯১২৩৭০৩, মোবাইল : ০১৭৭৮৯৪৫৯৪৩, ফ্যাক্স : ৯১২১৭৩০, E-mail : [email protected], [email protected], [email protected]