ঢাকা ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ | বেটা ভার্সন

আলোচিত দুর্নীতিবাজের কিছুই হবে না সব নাটক

বললেন জিএম কাদের
আলোচিত দুর্নীতিবাজের কিছুই হবে না সব নাটক

যত দুর্নীতিবাজের নিয়ে আলোচনা হচ্ছে তাদের কিছুই হবে না, এসব নাটক বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা জিএম কাদের। গতকাল শনিবার দুপুরে গাজীপুরের তেলিপাড়া এলাকায় সাগর সৈকত কনভেনশন সেন্টারে গাজীপুর জেলা জাতীয় পার্টির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেন।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, যত দুর্নীতিবাজদের নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, তাদের একজনেরও কোনো শাস্তি হবে না। এটা আমার ধারণা থেকে আপনাদের পূর্বাভাস বললাম। এগুলো নাটক। যেহেতু দায়মুক্তি দেওয়া হয়েছে, সেজন্য কিছু লোককে ভয় দেখানো হচ্ছে। আসলে দুর্নীতির বটবৃক্ষ এই সরকারের। সরকার বলছে পদ্মা সেতু নিজস্ব অর্থায়নে হয়েছে, আসলে এটা জনগণের রক্ত চুষে হয়েছে। সরকারের সব অর্থ জনগণের। কোটা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের জন্য যে কোটা পদ্ধতি তা সংবিধানবিরোধী। এর মাধ্যমে বৈষম্য তৈরি করা হয়েছে। সংবিধানের এই ধারা পরিবর্তনের সুযোগ কাউকে দেওয়া হয়নি। সরকার সমাজকে বিভক্ত করেছে। তারা শাসক শ্রেণি হিসেবে এই দেশকে তাদের নিজেদের পৈতৃক সম্পত্তি মনে করে। তারা আইনের ঊর্ধ্বে শুধু নয়, তারা নিজেদের পছন্দমতো আইন তৈরি করে তা প্রয়োগ করেছে। সরকারের সমালোচনা করে সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বলেন, ব্রিটিশদের মতো তাদের অনুগত প্রশাসন, অনুগত লোক দরকার। তাদের লেলিয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষকে শোষণ, নিপীড়ন কার্যকর করার জন্য একটা প্রশাসন দরকার। জনগণ এখন তৃতীয় শ্রেণির নাগরিক তারা শাসক শ্রেণিকে শুধু সেবা দেবে। জিএম কাদের বলেন, আমদানি ব্যয় বাড়ছে, ডলার সংকটে চরমে। এই কারণেই বিনিয়োগ কমছে। আয়ের চেয়ে ব্যয় এখন বেশি। দেশের অর্থনীতি ফুটা করে ফেলেছে এই সরকার। সেই ফুটা দিয়ে সব বের হয়ে যাচ্ছে। হাজার হাজার কোটি টাকা বিদ্যুৎ ও গ্যাস খাতের মাধ্যমে বিদেশে পাচার হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষের এখন যে দুর্দশা তা সরকারের ভ্রান্ত নীতি ও দুর্নীতির কারণে হয়েছে। সরকারকে এগুলো বললে তারা আমাদের নানা কথা শোনায়। এর আগে, জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উড়িয়ে সম্মেলনের কর্মসূচি শুরু হয়। জেলা জাপার আহ্বায়ক ও প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুস সাত্তার মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, জাপার মহাসচিব মুজিবুল হক চন্নু। এ সময় সরকারের সমালোচনা করে চুন্নু বলেন, দেশে লুটপাট চলছে। আওয়ামী লীগের জনপ্রিয়তা এখন শূন্যের কোটায়। সরকারি কর্মকর্তা হয়ে কীভাবে হাজার হাজার কোটির টাকার মালিক হয়, সেদিকে সরকারের নজর নেই। দেশের নেতাকর্মীরা যে টাকা কামাই করছে তাহলে আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রীরা কত টাকা কামাই করছে, জনগণ এখন তা জানে। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে আগামী ২ বছরের জন্য গাজীপুর জেলার জাতীয় পার্টির কমিটিতে আব্দুস সাত্তার মিয়াকে সভাপতি ও কামরুজ্জামান মন্ডলকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করেন দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত