ঢাকা ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ | বেটা ভার্সন

যেসব দেশের মানুষ বেশি স্মার্টফোনে আসক্ত

যেসব দেশের মানুষ বেশি স্মার্টফোনে আসক্ত

ফোন ছাড়া এক মুহূর্ত থাকতে পারে না আজকের প্রজন্ম। তবে এই নেশায় কাবু শুধু ছোটরা নয়, বড়রাও। আট থেকে আশি সবাই হাতে একটা জিনিস খুবই কমন, সেটি হলো স্মার্টফোন। বিশ্বে এমন কিছু দেশ আছে, যে দেশের মানুষ সবচেয়ে বেশি স্মার্টফোনে আসক্ত। জানুন এমনটি ১০টি দেশ সম্পর্কে। স্মার্টফোন আসক্তি নিয়ে সম্প্রতি একটি গবেষণা করে ম্যাকগিল বিশ্ববিদ্যালয়। এই তালিকা অনুযায়ী প্রথম ১০টি দেশ হল- চীন, সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, কানাডা, তুর্কি, ইজিপ্ট, নেপাল।

এই দশ দেশে স্মার্টফোন ব্যবহার করা হয় সবথেকে বেশি। উক্ত রিপোর্ট অনুযায়ী, চীনে মোবাইল ডিভাইস ও তার ব্যবহারকারীর সংখ্যা সবার থেকে বেশি। তা হওয়ার অন্যতম কারণ বলতে পারেন তাদের জনসংখ্যা এবং সেখানকার ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যের বাজার। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে সৌদি আরব। বিশ্বের অন্যতম ধনী দেশগুলোর মধ্যে একটি সৌদি আরব। এখানেও স্মার্টফোন ব্যবহারের সংখ্যা বাকি দেশের থেকে অনেক বেশি। আশ্চর্যের বিষয় হলো, প্রথমে তিনে থাকা তিনটি দেশই এশিয়ার। এর থেকে বোঝা যায়, ইউরোপ এবং আমেরিকার থেকে বেশি স্মার্টফোন ব্যবহার হয় এশিয়ায়। সবথেকে স্মার্টফোন আসক্ত এই ২৪টি দেশ- চীন, সৌদি আরব, মালয়েশিয়া, ব্রাজিল, দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান, কানাডা, তুর্কি, ইজিপ্ট, নেপাল, ইতালি, অস্ট্রেলিয়া, ইজরায়েল, সার্বিয়া, জাপান, ব্রিটেন, ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, রোমানিয়া, নাইজেরিয়া, বেলজিয়াম, সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি। আরো এক পরিসংখ্যান বলছে, আমেরিকায় ৯৭ শতাংশ নাগরিকের কাছে মোবাইল বা তার মতো কোনো ডিভাইস রয়েছে। প্রতি ৫ আমেরিকান নাগরিকদের মধ্যে একজনের কাছে রয়েছে স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট কানেকশন। স্লিকটেক্সটের রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বে ৪৮ শতাংশ স্মার্টফোন ব্যবহারকারী চিন্তায় পড়ে যান, যখন তাদের ফোনের ব্যাটারি ২০ শতাংশ বা তার নিচে নেমে যায়। যাকে নাম দেওয়া হয়েছে মনোফোবিয়া। ইন্টারনেট বা মোবাইল থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়ার যে ভয়, তাকেই বলা হয় মনোফোবিয়া।

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত