ঢাকা ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ | বেটা ভার্সন

বাঁধ নির্মাণে সড়কের যেন ক্ষতি না হয়

সতর্ক থাকার সুপারিশ
বাঁধ নির্মাণে সড়কের যেন ক্ষতি না হয়

বাঁধ নির্মাণে সড়কের যেন ক্ষতি না হয়, সতর্ক থাকার সুপারিশ। জাতীয় সংসদ ভবনে বৈঠক করে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি বাঁধ নির্মাণে মাটি খননের কারণে সড়ক যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে বিষয়ে সতর্ক থাকার সুপারিশ করেছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। গতকাল বুধবার কমিটির ৫ম বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি রমেশ চন্দ্র সেন।

বৈঠকে অংশ নেন- কমিটির সদস্য ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, সংসদ সদস্য মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম, মো. আফজাল হোসেন, নুরুন্নবী চৌধুরী, সৌমেন্দ্র প্রসাদ পান্ডে, রনজিত চন্দ্র সরকার, এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার এবং নাজনীন নাহার রশীদ।

এদিনের বৈঠকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের চতুর্থ বৈঠকের কার্যবিবরণী অনুমোদন ও বাস্তবায়নের অগ্রগতি সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। এছাড়া পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়কে টেকসই বাঁধ নির্মাণ, বিদ্যমান বাঁধগুলো শক্তিশালী করার পাশাপাশি বাঁধ নির্মাণে মাটি খননের কারণে সড়ক যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, সে বিষয়ে সতর্ক থাকার সুপারিশ করে।

বৈঠকে ড্রেজারের মেশিন নিয়মিত পরীক্ষা করা, কাটার সেকশনগুলো পরিষ্কার করা ও পাম্প সঠিকভাবে চলছে কি না তা মনিটরিং করতে বলা হয়। এসব কাজে প্রয়োজনে জনবল বাড়িয়ে ড্রেজার পরিচালনা করতে যাবতীয় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে কমিটি। ঘূর্ণিঝড় রিমালের আঘাতে উপকূলীয় অঞ্চলসহ সারা দেশে পানিসম্পদ সম্পর্কিত সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। উপকূলে বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পর তাৎক্ষণিকভাবে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় কাজ শুরু করায় ও ঘূর্ণিঝড় চলাকালীন নিরলসভাবে কাজ করে যাওয়ায় কমিটির পক্ষ থেকে মন্ত্রণালয়কে ধন্যবাদ জানানো হয়।

তিস্তা সেচ প্রকল্প কমান্ড এলাকার পুনর্বাসন ও সম্প্রসারণ প্রকল্পের অগ্রগতি এবং ডালিয়ায় তিস্তা নদী খননে নেওয়া ব্যবস্থা ও নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলার সেচ ও নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

এছাড়াও সিলেট জেলার সিলেট সদর ও বিশ্বনাথ উপজেলার দশগ্রাম মাহতাবপুর ও রাজাপুর পরগনা বাজার এলাকায় সুরমা নদীর উভয় তীরের ভাঙন থেকে রক্ষা প্রকল্পের অগ্রগতি এবং ড্রেজার ও মেকানিক্যাল ডিভিশনের কার্যক্রম ও এর অগ্রগতি ও এসব প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা করা হয়। একই সঙ্গে প্রকল্পের কাজ দ্রুত শেষ করার সুপারিশ করা হয়। বৈঠকে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালকসহ পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত