ঢাকা ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ | বেটা ভার্সন

এলএনজি সরবরাহ আরো কমল

গ্যাস সংকট চরমে
এলএনজি সরবরাহ আরো কমল

তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলএনজি) সরবরাহ আরো কমে গেছে। গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের আনোয়ারা-ফৌজদারহাট ৪২ ইঞ্চি পাইপলাইন দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত হলে ৩০ কোটি ঘনফুট কমে যায়। ফলে দেশজুড়ে গ্যাস সংকট চরমে পৌঁছেছে। পেট্রোবাংলা জানিয়েছে, ক্ষতিগ্রস্ত পাইপলাইন জরুরি রক্ষণাবেক্ষণের কারণে মহেশখালী ভাসমান টার্মিনাল থেকে এলএনজি সরবরাহ কমে গেছে। ফলে তিতাস ও বাখরাবাদ এলাকায় গ্যাসের স্বল্প চাপ বিরাজ করবে।

গত মে মাসের শেষদিকে সামিটের এলএনজি টার্মিনাল ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় জাতীয় গ্রিডে গ্যাস সরবরাহ ৬০ কোটি ঘনফুট কমে যায়। এতে পরিবহন, শিল্পসহ সব খাতে গ্যাস সংকট তীব্র হয়।

এর মধ্যেই আনোয়ারা-ফৌজদারহাট পাইপলাইন ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় এলএনজি সরবরাহ আরো ৩০ কোটি ঘনফুট কমে গেল।

দুটি টার্মিনাল থেকে সাধারণত ১১০ কোটি ঘনফুট এলএনজি সরবরাহ করা হয়। দেশে দিনে গ্যাসের চাহিদা ৪২০ কোটি ঘনফুট। এলএনজিসহ পেট্রোবাংলা সরবরাহ করে ৩১০ কোটি ঘনফুট, যা এখন কমে ২২০ কোটি ঘনফুটে দাঁড়িয়েছে।

আমদানি করা এলএনজি রূপান্তর করে পাইপলাইনে সরবরাহের জন্য মহেশখালীতে দুটি ভাসমান টার্মিনাল আছে। একটি যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি এক্সিলারেট এনার্জি, অন্যটি সামিট এলএনজি টার্মিনাল।

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত