ঢাকা ২৪ জুলাই ২০২৪, ৯ শ্রাবণ ১৪৩১ | বেটা ভার্সন

যে লক্ষ্যে এইচপি দলের অস্ট্রেলিয়া সফর

যে লক্ষ্যে এইচপি দলের অস্ট্রেলিয়া সফর

সবশেষ ২০০৮ সালে অস্ট্রেলিয়া সফরে গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। তারপর কেটে গেছে ষোল বছর, আর ওই মহাদেশে পা মাড়ায়নি লাল সবুজের প্রতিনিধিরা। চলতি বছর কিম্বা আগামী ২ বছরেও সেখায়ে সফরের পরিকল্পনা নেই টাইগারদের। আইসিসির ভবিষ্যৎ সফর পরিকল্পনা অনুযায়ী ২০২৭ সালের মার্চে অস্ট্রেলিয়া সফরে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের। সেটি লক্ষ্য রেখেই সেখানে যাচ্ছে বাংলাদেশ হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দল। সফরটির জন্য জাতীয় দল, এইচপিসহ ২২ জন ক্রিকেটারকে অস্ট্রেলিয়া পাঠাবে বিসিবি। আগামী ১৩ জুলাই যাত্রা করবে এইচপি দল। এ সফর উপলক্ষ্যে গতকাল বুধবার মিরপুরে এইচপি দলের আনুষ্ঠানিক ফটোসেশন হয়েছে। ফটোশুট শেষে এইচপি দলের প্রধান ও বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান বলেন, ‘আমাদের খেলোয়াড়দের জন্য এটা একটা বড় সুযোগ। এখানে কিছু জাতীয় দলের খেলোয়াড়ও নেওয়া হয়েছে। কারণ, ২০২৭ সালে আমাদের যে অস্ট্রেলিয়া সফর আছে, ওই খেলাটাও ডারউইনে হবে। এটা তাদেরও একটা প্রস্তুতি।’ এইচপি দলের সফরে জাতীয় দলেরও বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার আছেন। সাদমান হোসেন, মাহমুদুল হাসান, শাহাদাত হোসেন, আফিফ হোসেন ও শামীম হোসেন যাবেন এ সফরে। এ বিষয়ে নাঈমুর রহমান বলেন, ‘অনেক সময় আমরা দেখি আমাদের নতুন খেলোয়াড়দের একটা অচেনা পরিবেশে অভিষেক হচ্ছে। সেটা যেন না হয়, সে জন্য এইচপির প্রোগ্রামে প্রত্যেক বছরই একটা সফর থাকে।’

অস্ট্রেলিয়ান কন্ডিশনে তিন ফরম্যাটেই সিরিজ খেলার সুযোগ বাংলাদেশ এইচপি দলের সামনে। দারুণ এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে দুই টেস্ট ওপেনারকেও রাখা হয়েছে দলে। সাদমান ইসলাম ও মাহমুদুল হাসান জয় অস্ট্রেলিয়ায় দুটি চারদিনের ম্যাচের দলে আছেন। সামনের লম্বা টেস্ট ব্যস্ততা সামনে রেখে বিশ্বকাপ চলাকালীন জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের নিয়ে অনুশীলন ক্যাম্প পরিচালনা করছে বিসিবি। পাশাপাশি এইচপি দলের প্রোগ্রামও ছিল। রাজশাহীতে ক্যাম্প করে এইচপি দল এখন অস্ট্রেলিয়া পাড়ি জমানোর অপেক্ষায়।

এই সফরে পাকিস্তান শাহিনসের বিপক্ষে দুটি চারদিনের ম্যাচ খেলবে এইচপি। সেই সঙ্গে একটি ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজ এবং ৯ দলের একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টও খেলবে দলটি। এই সিরিজে দল গোছানো আগেই হয়েছিল। তবুও শেষ মুহূর্তে আরও একটু গুছিয়ে নিতে গত মঙ্গলবার প্রধান নির্বাচক গাজী আশরাফ হোসেন লিপু ও ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম হেড খালেদ মাহমুদ সুজন আলোচনায় বসেছিলেন।

সেখানে লম্বা আলাপে উঠতি ক্রিকেটারদের সম্পর্কে জেনেছেন নির্বাচক। অস্ট্রেলিয়া সফরের এইচপি দলে যুব বিশ্বকাপ খেলা ক্রিকেটারদের আধিক্য বেশি। তবে ঘরোয়া ক্রিকেটে পারফরমার ও অভিজ্ঞরাও আছেন। পেসার মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, আবু হায়দার রনি, রেজাউর রহমান রাজা আছেন অভিজ্ঞ পেসার হিসেবে। দুটি চারদিনের ম্যাচের জন্য দলে রাখা হয়েছে দুই টেস্ট ওপেনার সাদমান ইসলাম ও মাহমুদুল হাসান জয়কে। দুজনই লাল বলের সিরিজ শেষ হলে দেশে ফিরবেন। সামনের পাকিস্তান সফরের আগে লাল বলে ভালো প্রস্তুতির সুযোগ দুই ওপেনারের সামনেই। ছোট ফরম্যাটে খেলবেন আফিফ হোসেন, আকবর আলি, রাকিবুল হাসান, শামীম হোসেন পাটওয়ারীরা। টি-টোয়েন্টি দলে রাখা হয়েছে স্পিনার আলিস আল ইসলামকে। চারদিনের দুটি ম্যাচে দলকে নেতৃত্ব দিবেন জাতীয় দলের ওপেনার মাহমুদুল হাসান, সহ-অধিনায়ক শাহাদাত হোসেন। একদিনের সিরিজে অধিনায়ক আফিফ হোসেন, সহ-অধিনায়ক আকবর আলি। আর টি-টোয়েন্টিতে আকবর আলি অধিনায়ক ও তার ডেপুটি মাহফুজুর রহমার রাব্বি। ১৭ আগস্ট দুই টেস্টের সিরিজ খেলবে পাকিস্তান যাওয়ার সম্ভাব্য তারিখ বাংলাদেশ দলের। এর আগে ৬ আগস্ট পাকিস্তান সফরে যাবে ‘এ’ দল। সেখানে পাকিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে দুটি চারদিনের ও তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলবে।

বাংলাদেশ এইচপি দল

চারদিনের ম্যাচ : সাদমান ইসলাম, মাহমুদুল হাসান জয়, পারভেজ হোসেন ইমন, অমিত হাসান, শাহাদাত হোসেন দিপু, আরিফুল ইসলাম, মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন, আইচ মোল্লা, রাকিবুল হাসান, পারভেজ রহমান জীবন, হাসান মুরাদ, রেজাউর রহমান রাজা, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, রিপন মন্ডল, মারুফ মৃধা।

ওয়ানডে দল : তানজিদ হাসান তামিম, জিসান আলম, পারভেজ হোসেন ইমন, আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন পাটওয়ারী, আরিফুল ইসলাম, আকবর আলি, ওয়াসি সিদ্দিকি, রাকিবুল হাসান, পারভেজ রহমান জীবন, মাহফুজুর রহমান রাব্বি, আবু হায়দার রনি, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, রিপন মন্ডল, মারুফ মৃধা।

টি-টোয়েন্টি দল : তানজিদ হাসান তামিম, জিসান আলম, পারভেজ হোসেন ইমন, আফিফ হোসেন, শামীম হোসেন পাটওয়ারী, আরিফুল ইসলাম, আকবর আলি, ওয়াসি সিদ্দিকি, রাকিবুল হাসান, আলিস আল ইসলাম, মাহফুজুর রহমান রাব্বি, আবু হায়দার রনি, মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ, রিপন মন্ডল, মারুফ মৃধা।

আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত