আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ৬-০৯-২০১৮ তারিখে পত্রিকা

দেশে নবজাতক মৃত্যুহার কমেছে -নাসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক
| শেষ পাতা

বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দেশব্যাপী জাতীয় নবজাতক স্বাস্থ্য কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বুধবার প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ষ আলোকিত বাংলাদেশ

বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যবিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধির কারণেই নবজাতকের মৃত্যুহার কমেছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। বুধবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে দেশব্যাপী জাতীয় নবজাতক স্বাস্থ্য কর্মসূচির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, নবজাতকের মৃত্যুহারের দিক থেকে শ্রীলঙ্কার পর বাংলাদেশের অবস্থান। বর্তমানে বাংলাদেশের প্রতি হাজারে ৩০ নবজাতক মৃত্যুবরণ করছে। ২০২২ সালের মধ্যে এ সংখ্যা ১৮-তে এসে দাঁড়াবে। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য খাতে আমরা নির্ধারিত সময়ের আগেই লক্ষ্য পূরণ করতে পারব। এ উন্নতির ক্ষেত্রে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যাপক অবদান রেখেছে। শিশু ও মাতৃমৃত্যুর হার আমরা কমিয়েছি। এমনকি রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রেও আমরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছি, যা বিশ্বব্যাপী সমাদৃত হয়েছে।’ দেশ পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সফল উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ১০০ বছর পর দেশে কী হবে তার পরিকল্পনাও প্রধানমন্ত্রী করেছেন এবং সে অনুযায়ী তিনি তার কর্মযজ্ঞ পরিচালনা করছেন। তবে এ সফলতা বজায় রাখতে বর্তমান সরকারকে আবার ক্ষমতায় আনার জন্য তিনি দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘দেশের জনগণ চিকিৎসক চেয়েছে, অ্যাম্বুলেন্স চেয়েছে; আমরা দিয়েছি। তবে এখনও আমরা সংকটের মধ্যে আছি। আশা করছি স্বাস্থ্য খাতে নভেম্বর মাসের মধ্যে এসব সংকট দূর হবে। আমরা ১০ হাজার নার্স, ১২০০ মিডওয়াইফ, ৭ হাজার চিকিৎসক দিয়েছি। আরও ১০ হাজার ডাক্তার আমরা খুব দ্রুত নিয়োগ দেব পিএসসির মাধ্যমে।’ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এএইচএম এনায়েত হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ড. সুলতান মোহাম্মদ শামসুজ্জামান, বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. শহীদুল্লা, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের পরিচালক ড. মোহাম্মদ শরীফ প্রমুখ।