আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ২২-০২-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

নাটকে প্রথম মনোজ-নীলা

বিনোদন প্রতিবেদক
| বিনোদন

প্রথমবারের মতো একসঙ্গে একটি নাটকে অভিনয় করেছেন এ সময়ের দুই তরুণ অভিনয়শিল্পী মনোজ প্রামাণিক ও নীলাঞ্জনা নীলা। নাটকের নাম ‘উড়ো মেঘের বসন্ত’। চলতি সপ্তাহেই রাজধানীর উত্তরার বিভিন্ন লোকেশনে নাটকটির শুটিং শেষ হয়েছে। একটি ভিন্নধর্মী গল্পের নাটক ‘উড়ো মেঘের বসন্ত’ দিয়েই একসঙ্গে প্রথম কাজ করা হলো মনোজ-নীলার। তবে এর আগে তারা দুজন একটি টিভি চ্যানেলের শোতে অংশ নিয়েছিলেন। যেহেতু মনোজ একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি করেন, তাই তাকে নাটকে শিডিউল দিতে হয় একটু বুঝেশুনে। দর্শক এবং নির্মাতাদের কাছে মনোজের চাহিদা থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের কথা ভেবেই অনেক বেশি নাটকে কাজ করারও সুযোগ নেই তার। কিন্তু তারপরও ভালো গল্প পেলে মনোজ চেষ্টা করেন তা করতে। ‘উড়ো মেঘের বসন্ত’ নাটকের ক্ষেত্রেও ঠিক তাই হয়েছে। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে মনোজ প্রামাণিক বলেন, ‘নাটকের গল্পটা বেশ সুন্দর। যে কারণে গল্পের সঙ্গে মিল রেখেই পুরোনো নাম বাদ দিয়ে নাটকটির নতুন নাম রাখা হয়েছে উড়ো মেঘের বসন্ত। নীলার সঙ্গে নাটকে আমার এটাই প্রথম কাজ ছিল। নীলা খুব ভালো অভিনয় করে। দারুণ সহযোগিতাপরায়ণও। কাজ করার আগে একটু ভেবেছিলাম, না জানি কেমন হয়। কিন্তু কাজ করতে গিয়ে গল্পের ভেতরে প্রবেশ করে আমরা কাজটা বেশ উপভোগ করেছি। আমি খুব আশাবাদী নাটকটি নিয়ে।’ নির্মাতা তারেক রহমান জানান, শিগগিরই নাটকটি আরটিভিতে প্রচার হবে। নাটকটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে নীলাঞ্জনা নীলা বলেন, ‘নির্মাতা তারেক রহমানের সঙ্গে এটা আমার প্রথম কাজ ছিল। মনোজ ভাইয়ার সঙ্গেও ঠিক তাই। তিনি খুব ভালো অভিনয় করেন। প্রথম কাজেই তার সঙ্গে একটি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক হয়েছে। যে কারণে দুজনের মধ্যে বোঝাপড়াও ভালো ছিল। তাই কাজটি বেশ ভালো হয়েছে।’ নীলা জানান, এ নাটকে অভিনয় করতে গিয়ে বৃষ্টিভেজা দৃশ্যে অভিনয় করে কিছুটা অসুস্থ হয়েছিলেন। গেল ভালোবাসা দিবসে নীলা তাসরিফ খানের ‘চৌধুরী সাহেব’ ও জুবায়ের জিসানের ‘ভুলে ভরা কবিতা’ শিরোনামের দুটি গানে মডেল হয়েছেন। এছাড়া ইফতেখার আহমেদ অসীমের নির্দেশনায় ‘মিস্টার ম্যাংগো’র বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন। এদিকে ভালোবাসা দিবসে মনোজ অভিনীত মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘যে যেখানে দাঁড়িয়ে’, কল্লোলের ‘প্রথম প্রেম’ নাটকে তার অভিনয় বেশ প্রশংসিত হয়। এছাড়াও রেদওয়ান রনি নির্দেশিত মনোজ অভিনীত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ব্লাড রোজ’ও বেশ আলোচনায় আসে।