আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৮-১১-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

‘আলোকিত নারী’ সম্মাননায় ভূষিত অপু বিশ্বাস

বিনোদন প্রতিবেদক
| বিনোদন

 

অপু বিশ্বাস, ঢাকাই চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় নায়িকা। বহু সিনেমায় অভিনয় করে তিনি পরিণত হয়েছেন দশকিপ্রয় নায়িকায়। এখনও সিনেমায় অভিনয় করছেন। তবে বাংলাদেশের সিনেমা শিল্পের সার্বিক পরিস্থিতি ভালো নয় বিধায় সিনেমা নির্মাণ যেমন কমেছে, সেইসঙ্গে এক সময় যারা সিনেমায় অভিনয়ে দারুণ ব্যস্ত ছিলেন তাদেরও ব্যস্ততা কমেছে। তেমনি সিনেমায় অভিনয়ে ব্যস্ততা কমেছে অপু বিশ্বাসেরও। তারপরও তিনি চেষ্টা করেন ভালো গল্পের সিনেমায় কাজ করার প্রস্তাব পেলে তা করার। অপু বিশ্বাস নন্দিত নায়িকা এবং সংগ্রামী মা। তার এ দুটি বিষয়কে বিবেচনা করে ‘আলোকিত নারী কল্যাণ ফাউন্ডেশন’ তাকে বাংলাদেশের একজন ‘আলোকিত নারী’ হিসেবে সম্মাননা প্রদান করেছে। গেল শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানের একটি অভিজাত ক্লাবের হলরুমে অপু বিশ্বাসের হাতে ‘আলোকিত নারী সম্মাননা’ তুলে দেন ‘আলোকিত নারী কল্যাণ ফাউন্ডেশন’ সংশ্লিষ্টরা। একজন নারী হিসেবে এ সম্মাননা প্রাপ্তিতে অপু বিশ^াস বলেন, ‘ধন্যবাদ আলোকিত ফাউন্ডেশনকে আমাকে এভাবে সম্মানিত করায়। আমি সত্যিই আবেগাপ্লুত। একজন সচেতন নারী হিসেবে আমি যখন নায়িকা হিসেবে কাজ শুরু করি, তখনই আমি আমার পোশাকে বাঙালিত্ব আনার চেষ্টা করি। এটা সত্যি যে, আমি নয় বছর গোপনে সংসার করেছি। সন্তানের মা হওয়ার পরও তাকে আড়াল করে রাখি। কিন্তু তারপরও আমি সাহসিকতার সঙ্গে আমার সন্তানের পরিচয় সবার সামনে তুলে ধরি। আমি একটি কথাই বলতে চাই, নারীদের তাদের পথচলায় সাহসী হতে হবে। নিজেকে একজন শক্তিমান মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে। অনেক নায়িকাই মনে করেন বিয়ের পর জনপ্রিয়তা কমে যায়; কিন্তু এটা ভুল। মৌসুমী আপু বিয়ে করেছেন, সংসার করেছেন, দুই সন্তান আছে, নায়িকা হিসেবে তার জনপ্রিয়তা কমেনি, বরং বেড়েছে। আমার ক্ষেত্রেও ঠিক তাই হয়েছে। আমি আবারও ধন্যবাদ জানাই এই ফাউন্ডেশনকে আমাকে সম্মানিত করায়। আমি আগামীতে এই ফাউন্ডেশনের পাশে থাকার চেষ্টা করব নিশ্চয়ই।’ এদিকে অপু বিশ্বাস নিয়মিত স্টেজ শো নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। পাশাপাশি এরই মধ্যে তিনি শেষ করেছেন দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-টু’ সিনেমার কাজ। 
এতে তার বিপরীতে আছেন বাপ্পী চৌধুরী। অপু বিশ্বাসের সিনেমায় আগমন ঘটে ২০০৫ সালে প্রয়াত আমজাদ হোসেন পরিচালিত ‘কাল সকালে’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। এতে তিনি শাবনূর ও ফেরদৌসের সঙ্গে অভিনয়ের সুযোগ পান। পরে এফ আই মানিকের ‘কোটি টাকার কাবিন’ সিনেমায় শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন। চাষী নজরুল ইসলামের নির্দেশনায় ‘দেবদাস’ সিনেমায় তিনি তার স্বপ্নের চরিত্র ‘পার্বতী’র ভূমিকায় অভিনয় করেন। যদিও বা এ সিনেমায় ‘পার্বতী’ চরিত্রে অভিনয় করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার না পাওয়ায় তার মনে কষ্ট রয়েছে।