আজকের পত্রিকাআপনি দেখছেন ১৮-১১-২০১৯ তারিখে পত্রিকা

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু

প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজবের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি

নিজস্ব প্রতিবেদক
| প্রথম পাতা

রোববার থেকে সারা দেশে একযোগে শুরু হয়েছে চলতি বছরের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা। শেষ হবে ২৪ নভেম্বর। ৭ হাজার ৪৭০টি কেন্দ্রে এবার পরীক্ষার্থী ২৯ লাখ ৩ হাজার ৬৩৮ জন। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন। আর ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ লাখ ৫০ হাজার ৩৭১ জন।

এদিকে পরীক্ষা শুরুর আগে রোববার সকালে রাজধানীর বেইলি রোডে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজে পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজবের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি রাখা হচ্ছে। গুজবের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্কতা ও আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তবে সারা দেশে কোথাও প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম-আল-হোসেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এএফএম মনজুর কাদির ও ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ফওজিয়া আক্তার।
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী বলেন, সারা দেশে পরীক্ষা সুষ্ঠু, স্বচ্ছ ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তাসহ মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তারা সারা দেশে পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করছেন। তাদের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক পরীক্ষার খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। 
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব বলেন, সারা দেশে কোথাও কোনো প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তবে গুজবের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি রাখা হচ্ছে। প্রতিমন্ত্রী ও সচিব পরে মতিঝিলে আইডিয়াল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন।
সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রশ্নপত্র সংগ্রহে প্রলুব্ধকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা : প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্র সংগ্রহের জন্য পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রলুব্ধ করা হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। আর সে কারণে অপরাধীদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। ২৬ অক্টোবর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর আদেশ জারির পর রাজধানীর মিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে নির্দেশ দেয় অপরাধী চক্রকে চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। রোববার পরীক্ষা চলাকালে এ আদেশটি প্রকাশ পায়। অধিদপ্তরের নির্দেশনায় বলা হয়, একশ্রেণির অসাধুচক্র সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে কোমলমতি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রশ্নপত্র সংগ্রহের জন্য প্রলুব্ধ করছে। এটা পরীক্ষা সংক্রান্ত প্রচলিত আইনের পরিপন্থি। এ ধরনের অপরাধী চক্রকে শনাক্ত করে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি।
প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নিয়ে প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর : মতলব (চাঁদপুর) প্রতিনিধি জানায়, চাঁদপুরের মতলব উত্তরে এবার প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট ৬ হাজার ১৮০ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছে। এর মধ্যে প্রথম দিনে প্রাথমিকে অনুপস্থিত ছিল ১০৮ জন আর ইবতেদায়িতে ৪৩ জন। সব মিলিয়ে মোট ১৫১ জন। এবারে ২৫টি কেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা গ্রহণ করা হচ্ছে এ উপজেলায়। ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি জানায়, রোববার থেকে শুরু হওয়া প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার পাবনার ঈশ্বরদীতে প্রথম দিনে ১৫৭ শিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এদের মধ্যে প্রাথমিকে ১০২ জন ও ইবতেদায়িতে ৫৫ জন। অর্থাৎ এই শিক্ষার্থীরা প্রাথমিকেই ঝরে পড়ল। নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি জানান, শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে রোববার সুষ্ঠু, সুন্দর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে প্রথম দিনের প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মোট ১৫টি কেন্দ্রে প্রথম দিনের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে প্রাথমিকে ৩ হাজার ৭৬১ এবং ইবতেদায়িতে ৪১১ জন শিক্ষার্থী। এতে উপস্থিতির হার প্রাথমিকে ৯৫.৪৫ শতাংশ এবং ইবতেদায়িতে ৭৩.৬ শতাংশ।